আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও অনুর ভিতর পরমাণু ....... মেহরাব রহমান ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    অনুর ভিতর পরমাণু ....... মেহরাব রহমান












    অনুর ভিতর পরমাণু
    মেহরাব রহমান

    বিকেলের শেষ রোদ
    ঝুঁকে পড়া ঘষা  কাঁচ
    সমুখের ঝুলবারান্দায় 
    এখন বসন্তকাল 
    এইমাত্র সোনালি সন্ধ্যায়
    দোদূল্যমান রকিং চেয়ার
    হাতে চিনামাটি চোইনিক
    ফুলেল পিয়ালায় স্বর্ণাভ চা
    খুব একা ভাবনায় নিমগ্ন  আমি

    প্রেম হেঁটে চলে গেছে
    যোজন যোজন দূরে
    তুমি এখন গণমাধ্যমে
    প্রচারিত স্থির চিত্র
    অহমিকায় ছবি তোল
    প্রকান্ড পৃথিবীর সাথে 
    বিস্তৃত মোহনায়
    নানাবিধ ছলাকলা
    আমাকে এতটা হেলা ?
                      অবহেলা ?
    কতটা দহন দেবে
    কতটা পোড়াবে পোড়াও
    সেই কবে থেকে
    আমিতো পোড়ামাটি ঘর 
    নিরন্তর ভাসমান সমূদ্দুর

    ১৩ জুলাই , ২০১৮
    দুপুর ২টা
    টরন্টো

     http://www.alokrekha.com

    7 comments:

    1. বিলকিস জাকিয়া ইসলামJuly 31, 2018 at 6:36 PM

      মেহরাব রহমানের চমৎকার কবিতাটি পড়লাম।
      সুন্দর অভিমানী এক বিরল কবিতা।
      কার উপর এতো অভিমান কবি ?

      ReplyDelete
    2. সুস্মিতা কর্মকারJuly 31, 2018 at 6:57 PM

      ঝুলন্ত বারান্দায় চায়ের পেয়ালা হাতে
      কবির আবেগ ভরা এক অসাধারণ কবিতা।
      দৃশ্যটা চোখের সামনে যেন ভেসে ওঠে।
      কবিকে অনেদ অভিনন্দন আর ভালোবাসা

      ReplyDelete
    3. মৃণাল কান্তি দেJuly 31, 2018 at 6:59 PM

      দোদূল্যমান রকিং চেয়ার হাতে চিনামাটি চোইনিক ফুলেল পিয়ালায় স্বর্ণাভ চা খুব একা ভাবনায় নিমগ্ন কবি আমাদের এক অনবদ্য কবিতা উপহার দিলেন। ভাষার কারুকার্জ ভাবের মেলবন্ধন অনন্য। বহুদিন পর আমাদের প্রিয় কবিবর মেহরাব রহমানের কবিতা পেলাম। অনেক ভালোবাসা কবি ও আন্তরিক অভিনন্দন।

      ReplyDelete
    4. তাহমিনা আফরীনJuly 31, 2018 at 7:22 PM

      "কতটা দহন দেবে
      কতটা পোড়াবে পোড়াও
      সেই কবে থেকে
      আমিতো পোড়ামাটি ঘর
      নিরন্তর ভাসমান সমূদ্দুর। "
      কবি মেহরাব রহমান
      তার ভাবনা কি সুন্দর ভাবে
      প্রকাশ করেছেন।
      কবিকে অনেক ভালোবাসা

      ReplyDelete
    5. কামরুজ্জামান হীরাJuly 31, 2018 at 7:39 PM

      চমৎকার রচনাশৈলী ও প্রেম ভাব ও ভাষা প্রয়োগে চমৎকার একটা কবিতা । অনুর ভিতর পরমাণু কবিতায় কবি মেহরাব রহমান কাব্যিক ছন্দে প্রিয়ার চলে যাওয়া যোজন যোজন দূরে অঙ্কন করেছেন দারুন কবিতা। অনেক শুভেচ্ছা কবি। আপনি থাকুন আরো লিখুন। আলোকরেখাকে ধন্যবাদ

      ReplyDelete
    6. আফজাল হোসাইনJuly 31, 2018 at 7:49 PM

      মেহরাব রহমানের অনেক দিন পর আর একটি দারুন কবিতা।
      যেমন বিষয় বস্তু, তেমনি চমৎকার ভাষাভাব অপূর্ব
      শব্দচয়ন ও রচনা শৈলী মিলিয়ে অনবদ্য ও অনিন্দ্য এক কবিতা ।
      বড্ডো ভালো লাগলো।
      কবিকে অনেক শুভেচ্ছা আর অভিনন্দন

      ReplyDelete
    7. সুপ্রিয় পাঠক আপনাদের চমৎকার মন্তব্যের জন্য আমার অন্তহীন কৃতজ্ঞতা
      আলোকরেখার কাছেও আমি অনেক কৃতজ্ঞ

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ