আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও হাত –--------- তসলিমা নাসরিন ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    হাত –--------- তসলিমা নাসরিন







    হাততসলিমা নাসরিন

    আবার আমি তোমার হাতে রাখবো বলে হাত
    গুছিয়ে নিয়ে জীবনখানি উজান ডিঙি বেয়ে
    এসেছি সেই উঠোনটিতে গভীর করে রাত
    দেখছ না কি চাঁদের নীচে দাঁড়িয়ে কাঁদি দুঃখবতী মেয়ে!
    আঙুলগুলো কাঁপছে দেখ, হাত বাড়াবে কখন?
    কুয়াশা ভিজে শরীরখানা পাথর হয়ে গেলে?
    হাত ছাড়িয়ে নিয়েছিলাম বর্ষা ছিল তখন,
    তখন তুমি ছিঁড়ে খেতে আস্ত কোনও নারী নাগাল পেলে।

    শীতের ভারে ন্যুব্জ বাহু স্পর্শ করে দেখি
    ভালবাসার মন মরেছে, শরীর জবুথবু,
    যেদিকে যাই, সেদিকে এত ভীষণ লাগে মেকি।
    এখনও তুমি তেমন আছ। বয়স গেল, বছর গেল, তবু।
    নিজের কাঁধে নিজের হাত নিজেই রেখে বলি :
    এসেছিলাম পাশের বাড়ি, এবার তবে চলি।
     http://www.alokrekha.com

    13 comments:

    1. শামিম আজাদOctober 26, 2018 at 5:45 PM

      নারীবাদী লেখক কবি তাসলিমা নাসরিনের " হাত " কবিতায় নারীর মনের কথা বিবৃত হয়েছে। জীবন ডিঙি বেয়ে সে তার সম্পুর্নকে বিলীন করে দিতে চাঁদের নীচে দাঁড়িয়ে দুঃখবতী মেয়ে! হাত বাড়িয়ে দিয়েও তার ছাড়িয়ে নেয় নিজেকে বাঁচাতে এই মেকি ভালোবাসা ও ছায়ার সাধনে। নারী মনের চিন্তন ও অনন্য ভাবের প্রকাশ এই কবিতায়। অনেক ভালোবাসা তাসলিমা নাসরিন।ভালো থেকো।

      ReplyDelete
    2. মিতালি সেনOctober 26, 2018 at 6:31 PM

      নারীবাদী লেখক কবি তাসলিমা নাসরিন আমার খুব প্রিয় একজন ব্যক্তিতব। তিনি মেয়েদের কথা বলেন তাদের বঞ্ছনা ।পুরুষ শাসিত সমাজে নারীদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার কথা বলেন। মেয়েদের অধিকারের জন্য লড়াই করে আসছেন। আমি তাকে স্যালুট জানাই।

      ReplyDelete
    3. শাহরিয়ার কবিরOctober 28, 2018 at 1:34 AM

      “তাসলিমা নাসরিনের অসাধারণ কবিতা পেয়ে মনটা ভোরে গেল -এখানেই লেখিকার সার্থকতা। কি ভাষায় প্রকাশ- শব্দ ও ভাবের সাথে মনকাড়া এক কবিতা।
      অনেক অনেক শুভ কামনা আপনার জন্য।”

      ReplyDelete
    4. রেবেকা সুলতানাOctober 28, 2018 at 1:48 AM

      কবিতার মান খুব সুন্দর শব্দ ও ভাব যেভাবে
      অনুব্যক্ত হয়েছে তা সত্যি প্রশংসনীয়।
      অনেক শুভেচ্ছা কবিকে। অলোকরাখাকে ধন্যবাদ
      কবিতাটি প্রকাশ করার জন্য।
      তাসলিমা নাসরিনকে আমার শুভেচ্ছা ,
      যেখানেই থাকুন ভালো থাকুন।
      আশা করি আবারো আমরা আপনাকে
      বাংলাদেশে ফেরে পাবো।
      নারীদের জন্ন লিখে যাবেন

      ReplyDelete
    5. Shahnaz RahmatullahOctober 28, 2018 at 1:56 AM

      Beautiful poem.Touched my heart.
      Wonderful to read Taslima Nasrin in Alokrekha.
      My best wishes and support for her.
      Expecting more poems from you.
      You are a bright star for women'lib.
      Hats off to you.

      ReplyDelete
    6. শাকিলা জাফরOctober 28, 2018 at 2:18 AM

      "শীতের ভারে ন্যুব্জ বাহু স্পর্শ করে দেখি
      ভালবাসার মন মরেছে, শরীর জবুথবু,
      যেদিকে যাই, সেদিকে এত ভীষণ লাগে মেকি।
      এখনও তুমি তেমন আছ। বয়স গেল, বছর গেল, তবু।
      নিজের কাঁধে নিজের হাত নিজেই রেখে বলি :
      এসেছিলাম পাশের বাড়ি, এবার তবে চলি।"

      এমন সুন্দর গভীর কথা শুধু তাসলিমা নাসরিনই
      এনং অসাধারণ ভাবে বলতে পারেন।
      খুব ভালো লাগলো। আরো লেখা ও কবিতা আশা করি।
      নারীবাদের জন্নো লিখে যাবেন।
      ভাবনার সুসাস্থ ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।
      অনেক অভিনন্দন আর শুভ কামনা।
      ভালো থাকবেন

      ReplyDelete
    7. সিগ্মা হুদাOctober 28, 2018 at 2:33 AM

      তসলিমা নাসরিন -হাত।
      অসাধারণ ,উত্কৃষ্ট, চমৎকার বোধের প্রকাশ।
      অপূর্ব বিষয় বস্তু,ভাষাভাব ও শব্দচয়ন ও
      রচনা শৈলী মিলিয়ে অনবদ্য ও অনিন্দ্য এক কবিতা।
      আলোকরেখাকে ও কবিকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা ।
      আরো কবিতা আশা করি।
      ভালো থাকুন ,দীর্ঘায়ু হন ,
      এই কামনা করি

      ReplyDelete
    8. সাদেকা হালিমOctober 28, 2018 at 2:51 AM

      "হাত" কবিতায় নারীবাদী তাসলিমা নাসরিন দারুন কবিতা ও গভীর ভাব অভিব্যক্তিময়। উত্কৃষ্ট চমৎকার বোধের প্রকাশ।অপূর্ব বিষয় বস্তু,ভাষাভাব ও শব্দচয়ন ও রচনা শৈলী মিলিয়ে অনবদ্য ও অনিন্দ্য এক কবিতা। সব মিলিয়ে দারুন।
      আলোকরেখায় আরো লিখবেন please . অপেক্ষায়ে রইলাম।
      আলোকরেখাকে ও কবিকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা ।”

      ReplyDelete
    9. দীপালি সেনOctober 28, 2018 at 3:26 AM

      অসাধারণ কবিতা।
      অনেকবার পড়লাম ,কান্না পেলো ,
      চোখে হাত দিয়ে দেখি জল।
      মনে হলো , আমার কথা বলছেন।
      আমাদের কথা আপনার মতো করে আর কেউ বলে না।
      কাছে পেলে আপনার কোলে মাথা রেখে আর একটু কাঁদতাম।
      আপনার জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা।

      ReplyDelete
    10. বিপাশা কর্মকারOctober 28, 2018 at 4:08 AM

      " যেদিকে যাই, সেদিকে এত ভীষণ লাগে মেকি।"
      অপূর্ব ,অসাধারণ ,চমৎকার এক মন ছোঁয়া কবিতা।
      সত্তি তো , মেকিদের মাঝেই জীবনটা কাটিয়ে গেলাম।
      বলতে পারেন দিদি ? কোথায় গেলে আসল মানুষ পাবো ?
      অনেক অভিনন্দন আর প্রানঢালা ভালোবাসা আপনার জন্য।
      নিজের যত্ন নেবেন , যেখানেই থাকুন ভালো থাকুন , এই কামনা করি।

      ReplyDelete
    11. ফরিদা ইয়াসমিনOctober 28, 2018 at 4:38 AM

      "হাত গুছিয়ে নিয়ে জীবনখানি উজান ডিঙি বেয়ে
      এসেছি সেই উঠোনটিতে গভীর করে রাত"

      দারুন, অতুলনীয় একটি বিরল কবিতা.
      গভীর ভাবে মন ছুঁয়ে যায়। বহুবার পড়লাম।
      আমার মতো কত নারী সাড়াটা জীবন শুধু
      উজান বেয়ে গেল , পেলোনা তার স্বপ্নের ঘাট।
      কবিকে অনেক ভালোবাসা।

      ReplyDelete
    12. পরেশ বড়ুয়াOctober 28, 2018 at 5:06 AM

      নারীবাদী লেখিকা তাসলিমা নাসরিনের কবিতায় নারীর মনের কথা উঠে এসেছে। চাঁদের নিচে দাঁড়িয়ে দুঃখিনী মেয়ে। মনে হয় কত শত নারীর কণ্ঠ থেকে ভেসে আসছে এই কথা। আর কত কাল উজান বাইবে জগতের নারীরা ?চমৎকার ,কাল উপযোগী অসাধারণ এক বিপ্লবী কবিতা। তাই তাসলিমাকে জানাই বিপ্লবী সালাম। আপiনার সংগ্রামে আমরাও আছি আপনার সাথে। অনেক অভিনন্দন আর শুভেচ্ছা আপনাকে।

      ReplyDelete
    13. আফরীন আকতারOctober 28, 2018 at 5:25 AM

      কবিতাটি পড়ে বেশ লাগলো।একেবারে রিদয়ের গভীরে যেয়ে দাগ কাটে।
      প্রতিটি শব্দ অতি সচেতনতার সাথে ব্যবহৃত।
      বিষয়বস্তু চয়ন অনবদ্য। নামকরণ কবিতার সাথে সামঞ্জ্যষপূর্ন।
      অতি সুন্দর মন ছোয়া কবিতা। আরো লিখবেন কবি ,আশায় থাকলাম।
      তাসলিমা নাসরিনকে অনেক সাধুবাদ।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ