আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও জীবাণুযুদ্ধ -------- মেহরাব রহমান ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    জীবাণুযুদ্ধ -------- মেহরাব রহমান



    জীবাণুযুদ্ধ 
    মেহরাব রহমান

    নবনীতা তুমি দিনপ্রতিদিন
    আমাকে করেছে নুতন
    যেমন ভোরের উদিত কোমল সূর্য
    যেনবা ক্ষুরধার চকচকে ব্লেড 
    বিপরীতে তোমাকে আমি
    তিলতিল করে জাদুকরী
    তুলির আঁচড়ে সুন্দর করেছি
    করেছি তিলোত্তমা
    ধীরে ধীরে আমার করেছি আমি 
    এখন তুমি ঝর্ণাধারা, বহতা নদী  
    হাসো নির্ঝরিণী 
    আমি অফুরান ভেজা মেঘ 
    তীব্র আঘাতে প্রতিঘাতে
    কতনা দুঃখ দিয়েছি তোমাকে
    রৌদ্রের খরতপ্ত আগুনতো দেই নাই

    তুমি যখন কাঁদো নবনীতা 
    অজস্র জলধারায় বরফগলা জল
    জমতে জমতে এক সমুদ্দুর
    এখন আমি খুব ভয়ার্ত
    বিশ্ব মানবকুলের অবক্ষয়ে 
    দেখছোনা তুমি
    কেমন বিশ্বময় মৃত্যুআতঙ্ক 
    খুব ভয়ঙ্কর জীবাণুযুদ্ধ
    যেনবা তৃতীয়মহাযুদ্ধ
    'করোনা' কী দোর্দন্ড প্রতাপ !!!
    আমি এক বিবাগী কবি
    বাউন্ডেলে হাওয়ায় উড়ি
    জীবনের হিসাবের খাতায়
    আঁকিবুকি কতকিছু অবিরাম লিখে যাই 
    আমি ঈশ্বরের এক ক্ষুদ্র করণিক
    জলরং তেলরঙে আঁকি
    গাঁথি শব্দের বিচিত্র মালা
    আমাকে বাঁচাবার জন্য
    তোমার কতনা  আয়োজন
    প্রতিক্ষনে অতন্দ্র প্রহরীর মতো সজাগ দৃষ্টি 
    নবনীতা:
    এরকম মৃত্যু আমি চাইনা
    তথাপি আমি এক সাহসী পুরুষ
    জীবন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা ধরে
    শুয়ে থাকি এক বিছানায় পাশাপাশি 
    আমরা সবাই এখন  স্বনির্বাসনে ; নিজগৃহকোনে ;
    বৈরী হাওয়ায় দোলে প্রেম-বিরহ-অন্ধকার-রোদ-বৃষ্টি-আলোছায়া
    কালোমেঘ অশনিসংকেত
    Behind the bar
    অপূর্ব বন্ধনে আমাদের বন্দি জীবন 
    অতএব
    এবং
    এবং
    যদি যেতে হয়
    চলে যাবো নিয়তির ভেলায়
    নবনীতা :
    আমাকে আমার সঙ্গী মৃত্যুকে
    যদি পারো ক্ষমা করে দিও 
    যদি হয় অবিনশ্বরের অলঙ্ঘ্য বিধান
    তোমার ভালোবাসা বুকে ধরে
    সেই স্রোতধারায় আমি
    ভেসে যেতে পারি জনম জনম

    অলংকরণ : টরোন্টোতে বসবাসরত অঙ্কনশিল্পী মহিবুল ইসলাম 

     http://www.alokrekha.com

    3 comments:

    1. ফাতেমা জোহরাApril 3, 2020 at 7:19 PM

      নবনীতা যখন কাঁদে অজস্র জলধারায় বরফগলা জল জমতে জমতে এক সমুদ্দুর।কিন্তু এখন আমরা খুব ভয়ার্ত বিশ্ব মানবকুলের অবক্ষয়ে বিশ্বময় মৃত্যুআতঙ্ক ভয়ঙ্কর জীবাণুযুদ্ধ তৃতীয়মহাযুদ্ধ 'করোনা'র কী দোর্দন্ড প্রতাপ--আজকের সময়কে কবি এঁকেছেন তার শব্দ দিয়ে। খুব ভালো লাগলো। ভালো থাকবেন।

      ReplyDelete
    2. মিতা রহমানApril 3, 2020 at 7:26 PM

      আমরা এখন খুব ভয়ার্ত বিশ্ব মানবকুলের অবক্ষয়ে বিশ্বময় মৃত্যু আতঙ্ক ভয়ঙ্কর জীবাণুযুদ্ধ তৃতীয়মহাযুদ্ধ 'করোনা'র কী দোর্দন্ড প্রতাপে জীবন পার করছি। এই সময় ঘরের বসে এই কবিতাটা পড়ে মন দোলা দিল। সুস্থ থাকবেন। ভালো থাকবেন এই কামনা করি।

      ReplyDelete
    3. শফিক রায়হানApril 3, 2020 at 9:32 PM

      আমরা এখন খুব ভয়ার্ত বিশ্ব মানবকুলের অবক্ষয়ে বিশ্বময় মৃত্যু আতঙ্ক ভয়ঙ্কর জীবাণুযুদ্ধ তৃতীয়মহাযুদ্ধ 'করোনা'র কী দোর্দন্ড প্রতাপে জীবন পার করছি। চমৎকার রচনাশৈলী ও স্বতন্ত্র ভাব ও ভাষা প্রয়োগে চমৎকার একটা কবিতা ।কাব্যিক ছন্দোবদ্ধ দারুন কবিতা। অনেক শুভেচ্ছা কবি। আপনি ভালো থাকুন আরো লিখুন !

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ