আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও দিগন্তের হাতছানি ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    দিগন্তের হাতছানি














    দিগন্তের হাতছানি
    ফাহমিদা বারী

    ছোটবেলা থেকেই--
    এক অদ্ভূত স্বপ্নের সাথে আমার বসবাস।
    আকাশটাকে ছোঁবো আমি...।
    মা'র হাজার প্রবোধ, শত প্রলোভনেও,
    ইচ্ছেচ্যূতি ঘটতো না আমার।
    ঐ আকাশটা আমার চাই।

    শেষমেষ আমার জেদের কাছে হেরে যেতো মা,
    'কী দস্যি মেয়েরে বাবা!'
    তবু আকাশপ্রাপ্তি হতো না আমার।
    কিশোরী জীবন যখন,
    পুকুর জলে ঝাঁপাঝাঁপি আর গাছের শাখায় ডেরা বাঁধা।

    তখনও গাছের মগডালে উঠে,
    আকাশের দূরত্ব টা ঠিক মেপে দেখতাম।
    যতদূর চোখ যায়...
    বিস্তীর্ণ ফসলের ক্ষেতের, 
    আল ধরে চলতে চলতে,এমনি একদিন...
    মনের মাঝে জ্বলে উঠলো সহস্র খুশীর পিদিম।
    ঐ তো আকাশ...কত কাছে...
    মাটির উপর ক্লান্ত দেহে এলিয়ে আছে।
    আজ না হোক, কাল ঠিক ছোঁবো তাকে।
    আকাশ পেয়ে গেছি এই খুশীতেই,
    মাতোয়ারা আমি তখন। 
    এখন তো কেবল ছোঁয়ার অপেক্ষা...
    দিন ঘুরে মাস যায়, মাস ঘুরে বছর।
    ঐ কয়েকটা পদক্ষেপ আর হাঁটা হয় না আমার,
    ছুঁয়ে দেখা হয় না আকাশটাকে,
    ইচ্ছেটা শুকিয়ে যায় বুকের ভেতর।
    দিনগুলো হয়ে ওঠে অথর্ব, ক্লান্তিকর।
    বয়সের ভারে ন্যূজ আমার মা,
    একদিন বলেই ফেললেন কথায় কথায়;
    'তুই না আকাশ ছুঁতে চেয়েছিলি?!'
    জীবনের অনেকগুলো বছর পেরিয়ে-
    আত্মজার মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আমি,
    কণ্ঠে তার একই ইচ্ছের প্রতিধবনি...
    'মা, আমি আকাশ ছোঁবো।'
    মুহূর্তেই জ্বলে ওঠে আমার নিভন্ত চোখের তারা,
    উদ্দীপ্ত হয়ে উঠি আমি।
    মেয়েকে বলি,
    "হ্যাঁ মা, ঐ তো আকাশ, খুব কাছে...
    চোখের সীমানার কাছাকাছি...হাত বাড়ালেই কাছে আসে।
    ধরা ছোঁয়ার কতো কাছে!
    কিন্তু তোমায় পাড়ি দিতে হবে অনেক পথ,
    যেতে হবে বহূদূর,
    গড়তে হবে আপন দিগন্ত।
    তাহলেই আকাশটা তোমার।।"
     http://www.alokrekha.com


    1 comments:

    1. মাইনুল ইসলামOctober 31, 2017 at 4:48 PM

      সুন্দর ইচ্ছে! কবিতার কথাগুলো খুবই ভাল লেগেছে।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ