আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও ! আলোকরেখার ৫০০,০০০ পাঠকের ভালোবাসায় আপ্লুত ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    ! আলোকরেখার ৫০০,০০০ পাঠকের ভালোবাসায় আপ্লুত


    একা পথচলা, আর সবার সাথে চলা এই দুটোর যে কি বিরাট পার্থক্য তা আজ আমার হৃদয়ে অনিমেষ এর মত উদ্ভাসিত ও অনুভূত হচ্ছে!
    মনের একান্ত গভীরে একটা পবিত্র সুরের অনুরণন যেন শুনতে পাচ্ছি! আমার একার শুরু করা পথ চলায় যখন যোগ দিয়েছে হাজারো বোদ্ধা পাঠক তখন আলোকরেখা হয়ে উঠেছে পুজোর বেদী, সত্যম শিবম সুন্দরম এর তীর্থ আর সুকান্তি হৃদয়ের মিলনমেলা!আজন্ম সুন্দরের পূজারী সানজিদা রুমীর এটা যে কত বড় পাওয়া তা লিখে প্রকাশ করা সম্ভব নয়! আলোকরেখার ৫০০,০০০ পাঠকের ভালোবাসায় আপ্লুত এই মুহূর্তটি মহাকালের অসীমে এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের মত বিরাজমান থাকবে! আর সেই সাথে আমার প্রার্থনা থাকবে আমাদের এই পথচলা, সুন্দরের পূজায় আমাদের নৈবেদ্য আর সুন্দরতর একটা আগামী আমাদের সন্তানদের জন্যে উপহার দেবার এই প্রচেষ্টা আপনাদের সবার ভালোবাসায় উত্তরোত্তর আরো পূর্ণতা পাক!


    আজ আমাদের সাহিত্য ও সংস্কৃত ক্রান্তি কাল। হালতো আমাদের ধরতে হবে। তাই এই ওয়েব সাইট খোলার প্রয়াস। আজ আলোকরেখা , ০০,০০০ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করলো।আলোকরেখার পক্ষ থেকে সারা বিশ্বে সকল পাঠক শুভানুধ্যায়ীদের জানাই আন্তরিক ধন্যবাদও কৃতজ্ঞতা।এর জন্ম হয়েছিল একটি ছোট্ট পরিসরে পাঠকদের সহায়তায় আজ এই অবদি চলা.এই পথ চলা মসৃন ছিল না।অনেক বাধা বিপত্তি হুমকি হ্যাকিং সব পেরিয়ে আস্তে সক্ষম হয়েছে আপনাদের ভালোবাসায়।




    ভোরে সূর্যের আলোকরেখা রাতের অন্ধকার দূর করে। তেমনি জ্ঞানের রশ্মিরেখা জীবনকে উদ্ভাসিত করে। প্রজ্ঞা আলো এবং অজ্ঞতা অন্ধকার। জ্ঞান ছাড়া অতীত ইতিহাস , আত্ম অন্বেষণ, উৎপত্তি ,সংস্কৃতি চর্চা ,মুক্তচিন্তা ,নিরপেক্ষ চেতনা সম্ভব নয়। জ্ঞানই শক্তি। জ্ঞানহীন জীবন শিকড় ছাড়া একটি গাছের মত। জ্ঞানের সুদীপ্ত প্রভা পরিবার তথা সমাজ প্রগতির প্রতিজ্ঞা। অন্ধকার অন্ধকারকে দূরভিত করতে পারে না। অজ্ঞতাও পারে না ঘৃণা ,হিংসা দ্বেষ পেরিয়ে ভালোবাসতে শেখাতে। "মানুষ মানুষের জন্য" শিখতে চাই জ্ঞানের প্রতীতি অন্বেষণ। "আলোক রেখা" শুধু একটি সাইট বা ব্লগ নয়। এটিকে একটি সংগ্রহশালা বলা যেতে পারে। ব্যস্ততম জীবনে নানা জায়গায় দৌড়ে বা খোঁজ তল্লাশি না করে একটু স্বস্তিতে নিজেকে আলোকিত প্রজ্ঞাময় করার জন্য এক জায়গায় অনেকগুলো বিষয়ের উপর আলোকপাত করার জন্য আলোকরেখা" "এই অনলাইন প্রয়াস।


    আশা করি এই ওয়েবসাইটে মাধ্যমে আমাদের ধুলায় ঢেকে থাকা সত্তা , ছন্দহীন জীবন, ঘুমের জালে জড়িযে থাকা চেতনা ,মনের কোণের সব দীনতা মলিনতা দূর করে মুক্ত আলোর জাগরণী ছুঁইয়ে দেবে। " আলোকরেখা" স্বাধীন মুক্ত চেতনার ধর্মনিরপেক্ষ মানবতাবাদী ওয়েবসাইট।পৃথিবীতে ধর্মের নাম যে অধর্ম চলছে তার বিরুদ্ধেই আমার "আলোকরেখা" জন্ম। আলোকিত চেতনার বীজ বপন করতে হলে সোচ্চার হতে হবে শুধু ফেসবুক বা অন্য সামাজিক মাধ্যমে তা সম্ভব হয় না। এই সব মাধ্যম অনেকটাই শেলফি, স্বীয় প্রদর্শনী, আত্ম মহিমান্বয়ন,বস্তুবাদই বেশি।তাই আত্ম পরিতৃপ্তি বা তুষ্টির জন্য দরকার নিজস্ব আন্দোলনের জায়গা আর সেই ভাবনা থেকেই "আলোকরেখা" যাত্রা শুরু এর মূল ভিত্তি হচ্ছে দার্শনিক, প্রকৃতিবাদ, নৈতিক মূল্যবোধ, সামাজিক রীতি, প্রথা অনুশাসন গোঁড়ামির শৃঙ্খলমুক্ত মানবতাবাদ। আলোকরেখা মূলত আমার দেখা জানা ৭১' যুদ্ধ ,বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্মৃতি, আমার রবীন্দ্রনাথ যেভাবে আমি রবীন্দ্রনাথ কে দেখি ভাঙি গড়ি বা অন্যেরা তাদের রবীন্দ্রনাথকে কিভাবে দেখে,আপন দর্পণ নিজস্ব চিন্তা চেতনার প্রতিফলন ,আমার প্রকাশিত অপ্রকাশিত লেখা ,বাংলা সাহিত্য,বাংলা সংস্কৃতি যা তথাকথিত ধর্মের করাঘাতে হারাতে বসেছে ,কবি তাঁদের জীবনী , দর্শন তত্ত্ব,লালন, গল্প ,প্রেমাখ্যান, কবিতা কবিতা পাঠ,বৃহন্নলা, সমপ্রেমী দের কথা, ভালো ছবি, ছায়াছবি বা বিশ্বের খবরাখবর ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করে। 


    সানজিদা রুমি কর্তৃক গ্রথিত http://www.alokrekha.com

    12 comments:

    1. রেহনুমা কবিরFebruary 23, 2018 at 7:39 PM

      আজ আলোকরেখা ৫, ০০,০০০ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করলো। আগামী চলার পথ সুন্দর ও সুগম হোক আলোকরেখাকে অনেক অনেক অভিনন্দন আর সাধুবাদ

      ReplyDelete
    2. রেহানা সুলতানাFebruary 23, 2018 at 7:42 PM

      অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই আলোকরেখার সংশ্লিষ্ট সকল লেখক কবি ও পরিচালকবৃন্দকে !

      ReplyDelete
    3. রফিকুল ইসলামFebruary 23, 2018 at 7:45 PM

      আজ আলোকরেখা ৫, ০০,০০০ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করলো।আগামী চলার পথ সুন্দর সুগম ও মসৃন হোক। আলোকরেখাকে অনেক অনেক অভিনন্দন আর সাধুবাদ!

      ReplyDelete
    4. কামরুজ্জামান হীরাFebruary 23, 2018 at 8:00 PM

      আলোকরেখা ৫, ০০,০০০ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করেছে ।এর সামনের চলার পথ আরো সুন্দর হোক। আলোকরেখাকে ও তার কবি লেখকদের জানাই অনেক অনেক অভিনন্দন আর শুভেচ্ছা

      ReplyDelete
    5. কবিতা রায়February 23, 2018 at 8:05 PM

      আলোকরেখাকের চলার পথ সুন্দর সুগম ও সুললিত হোক এই কামনা করি -- ভালবাসা আর অভিনন্দন

      ReplyDelete
    6. অভিনন্দন আলোকরেখা ! অভিনন্দন পাঠক ! অভিনন্দন সানজিদা রুমী! আলোকরেখার পাঠক সংখ্যা ৫০০,০০০ এ পৌঁছে যাওয়া, মাসটা ফেব্রূয়ারি হওয়া, দুদিন আগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আমাদের হৃদয়ে মায়ের মুখের ভাষার প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর আকুতি আর বিশালতা - এই সব মিলিয়ে আমার মনে একটা গান বাজছে : হৃদয় আমার নাচেরে আজিকে ...! আর এইক্ষণে মনে হলো চারদিকের সেলফির রাজত্বে আর রাজাধিরাজ নার্সিসাসের দোর্দন্ড প্রতাপের মাঝেও একটা সুবাতাসের পরশ যেন স্পর্শ করে গেলো আমাকে ! মনে হলো আমি আবারো কণ্ঠে তুলে নেই সুকান্তের কবিতা আর উচ্চকন্ঠে বলি:
      চলে যাব- তবু আজ যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ
      প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল,
      এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি—
      নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।
      অবশেষে সব কাজ সেরে,
      আমার দেহের রক্তে নতুন শিশুকে
      করে যাব আশীর্বাদ,

      তারপর হব ইতিহাস।।

      ReplyDelete
    7. ঋতু মীরFebruary 23, 2018 at 9:57 PM

      অন্তরের অন্তরতম অভিনন্দন! আলোকরেখা! বিমুগ্ধ পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে তোমার অঙ্গীকার আলোকরেখাকে আরও বহুদুর নিয়ে যাক- এই শুভকামনা!

      ReplyDelete
    8. আমার প্রাণের পতাকায় উড়ে বিচিত্র রঙের জলছবি lআলোকরেখার সাফল্য আমাকে উজ্জীবিত রাখে lআলোকরেখার রংধনু রং অলৌকিক পতাকা উড়ছে পতপত আমার অন্তর আকাশে lঅন্তহীন শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন আলোকরেখার জন্য l


      ReplyDelete
    9. ৫,০০.০০০ পাঠক সংখ্যা পৌঁছে গেছে। সানজিদা রুমি ও আলোকরেখাকের চলার পথ সুন্দর সুগম ও সুললিত হোক এই কামনা করি -- ভালবাসা আর অভিনন্দন!

      ReplyDelete
    10. অল্প সময়ে আলোকরেখা এত জনপ্ৰিয়তা পাবার কারণ সাঞ্জিদা রুমির একাগ্রতা ও লেখার মান। আরো সুশোভিত নয়নাভিরাম ওয়েব সাইট। এতো সুন্দর সাজানো গোছালো। আসলেও সংগ্রহ শালা। গৌতম বুদ্ধের সুসজ্জিত ছবি তাঁর বাণী, সত্যজিৎ রায় ,রবিঠাকুরের গীতবিতানের সাথে সমাজের সথেকে ৰাচ্চিত বৃহন্নলাদের কথা অন্য মাত্রা দান করেছে।আলোকরেখা আমাদের সব সময় প্রিয় ও থাকবে যতদিন এর ম্যান বজায় থাকবে।সত্য ও সুন্দরের জয় হোক ! অভিনন্দন

      ReplyDelete
    11. মৃণাল কান্তি দেFebruary 24, 2018 at 3:13 PM

      আলোকরেখাকে আন্তরিক অভিনন্দন !আমি খুবই আনন্দিনত যে আলোকরেখা'র আজ ৫ লক্ষ পাঠক ! আমিও তাদের একজন ! অবশ্যই অসুস্থতা সত্ত্বেও সানজিদা রুমির অক্লান্ত পরিশ্রমে আজ এই বিজয় ও সফলতা। তবে তার প্রতি সম্মান রেখেই বলতে চাই ,যেখানে দেবব্রত সিংহ, মহাদেব সাহা ,জয় গোস্বামী ,আল মাহমুদ ,সুনীতি দেবনাথ,মেহরাব রহমান ,সুনিকেত চৌধুরী ,বিষ্ণু প্রিয়া অমিয় চ্যাটার্জি প্রমুখগণ লিখবেন তা এমনিতেই জনপ্রিয়তা পাবে ! আর তাই আমরা আলোকরেখা পড়ি !

      ReplyDelete
    12. আহসান হাবিবFebruary 24, 2018 at 10:32 PM

      সানজিদা তোমাকে কি ভাষায় শুভেচ্ছা দেব ! আলোকরেখার সেদিন শুরু করলে-এর মধ্যেই ৫০০.০০০ পাঠক সংখ্যা পৌঁছে গেছে। তোমাকে আর তোমার আলোকরেখাকে ভালবাসা আর অভিনন্দন!

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ