আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও অনুর ভিতর পরমাণু ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    অনুর ভিতর পরমাণু
















    অনুর ভিতর পরমাণু
     মেহরাব রহমান

    বিবর্তন বিভক্তির
    জোয়ার ভাটা  
    এক ভঙ্গুর এবং
    গড়নের খেলা।
    পাগলা ঘোড়ার মত তাড়ায় আমাকে
    চঞ্চল চলমান জীবন

    দুঃখের ভেলায় ভাসি অসম্ভব
    তখন অন্ধকারের করতলে কারাবন্দি
    অদৃশ্য হাতের অনড় পুতুল
    অনুক্ষণ
    অণুবীক্ষণ আলোর জন্য
    অপেক্ষায় থাকতে থাকতে দেখি
    অন্তরলোকের দূর ঠিকানা
    দাঁড়িয়ে আছে
    আমারই উজ্জ্বল মর্মর সমাধি

    ১৬ মার্চ, ২০১৭

    টরন্টো


     http://www.alokrekha.com

    11 comments:

    1. কামরুজ্জামান হীরাMarch 20, 2018 at 7:57 PM

      দারুন গভীরতা ,ভাব মনের ভেতর অতল তলে অনুরণ সৃষ্টি করে। " বিবর্তন ও বিভক্তির
      জোয়ার ভাটা এক ভঙ্গুর এবংগড়নের খেলা।পাগলা ঘোড়ার মত তাড়ায় আমাকে
      চঞ্চল চলমান এ জীবন " আজকের যান্ত্রিক জীবনের অনুভব ।অনুর ভিতর পরমাণু কবিতায়
      কবি মেহরাব রহমান আজ এই বাস্তব কে তুলে ধরেছেন মনের অনুক্ষনে। অনেক ভালোবাসা কবিকে।

      ReplyDelete
    2. ঋতু মীরMarch 20, 2018 at 10:08 PM

      "দাঁড়িয়ে আছে
      আমারই উজ্জ্বল মর্মর সমাধি " - দারুণ এই অভিব্যাক্তি! জীবনের অমোঘ সত্য কবিতায় সুন্দর ভাবে ফুটে উঠেছে। আমার পেছনে সমাধি, সামনে আছে আয়না- আমার অনড় প্রিতিবিম্ব আমাকে স্মরণ করিয়ে দেয়- চলমান জীবন থেকে খসে পড়ছে দিন, একটি একটি করে। সমাধি পেছন থেকে এগিয়ে আসছে দ্রুত বা ধীরে ।
      অবশ্যম্ভাবী ভবিতব্যকে জানান দিয়ে। ধন্যবাদ কবিকে!

      ReplyDelete
    3. অনুর ভিতর পরমাণু , চমত্কার লাগলো

      ReplyDelete
    4. বিশ্বনাথ বসুMarch 20, 2018 at 11:59 PM

      অনুর ভিতর পরমাণু , কবিতাটা ভালো , এতো দিন ভাবতাম মেহiরাব রহমানের মতো কবিদের মুক্ত চিন্তার মানুষ , কিন্তু কবির হালে যে হুজুরের মতো বেশভূষা , তা দেখে নিরাশ হলাম

      ReplyDelete
    5. পাঠক সমাবেশ #পাঠক #আলোকরেখা #শাহবাগ #আজিজ মার্কেটMarch 21, 2018 at 12:07 AM

      আমাদের আজকের কবিতা অনুশীলনে অনুর ভিতর পরমাণু কবিতা। মেহরাব রহমানের অনুর ভিতর পরমাণু কবিতায় জীবনের গভীর ভাবনা, প্রতিফলন ও তার অভিব্যক্তির প্রকাশ।যেমন বিষয় বস্তু জীবনের চরম বাস্তবতা দুঃখের ভেলায় ভাসি অসম্ভব তখন অন্ধকারের করতলে কারাবন্দি অদৃশ্য হাতের অনড় পুতুল আমরা। তেমনি চমৎকার ভাষাভাব অপূর্ব ও শব্দচয়ন ও রচনা শৈলী মিলিয়ে অনবদ্য ও অনিন্দ্য এক কবিতা। বড্ডো ভালো। অনেক ভালোবাসা কবি।আলোকরেখা অনেক ধন্যবাদ এমন একজন কবিকে উপহার দেবার জন্য

      ReplyDelete
    6. শর্মিষ্ঠা সেনMarch 21, 2018 at 2:23 AM

      বিশ্বনাথ বসুর কমেন্ট পড়লাম , অনেকটা বাক্তিগত আক্রমণ , এটা ঠিক নয় ,সবার নিজের ইচ্ছে মতন বেশভূষা করার স্বাধীনতা বা অধিকার আছে। মানুষের বিচার তার ক্রমে। তবে বুদ্দিজীবিদের পোশাকের ব্যাপারে সাধারণ মানুষের একটা perception আছে সেটার বিচ্চুতি ঘটলেই বোধয় বিশ্বনাথ বসুর মতো লোকেরা এমন কথা বলেন

      ReplyDelete
    7. শিরিন সুলতানাMarch 21, 2018 at 3:04 AM

      আমি শর্মিষ্ঠা সেনের কমেন্টের সাথে একমত। বিশ্বনাথ বাবুর কমেন্টের ভাষা গ্রহণযোগ্গ নয়। তবে perception আর expectation এর বাপারটাও ঠিক। যেমন কবির কাছে আমার প্রশ্নো, কাল যদি রিজওয়ানা চৌধুরী বন্না বোরকা পড়ে রবীন্দ্রো সংঙ্গীত গাওয়া শুরু করেন , মেহরাব রহমান সেটা কি ভাবে দেখবেন ?

      ReplyDelete
    8. সুহৃদ শর্মিষ্ঠা সেন আপনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা সত্যটুকু অন্যধাবন করে প্রকাশের জন্যে l
      এইটা বুঝতে হবে কে কী ভাষায় প্রার্থনা করবে , কী ভঙ্গিতে করবে, অগ্নি পূজা করবে না ঈশ্বর পূজা করবে সে তার ব্যাক্তি স্বাধীনতা l তবে এটি অবশ্যি বিচার্য সে অন্যের এতটুকু মানসিক কিংবা শারীরিক ক্ষতি সাধন করছে কিনা ?

      ReplyDelete
    9. Shegufta MehjabeenMarch 21, 2018 at 3:57 AM

      শিরিন সুলতানার কমেন্টের জের ধরে বলছি , বন্নার বোরকা পড়ে রবীন্দ্রসংগীত গাওয়ার উদাহরণটা বোধয় একটু বেশি sarcastic হয়ে গেল। আর পুরো ব্যাপারটার মদ্ধে কোথায় যেন একটা ধর্মের গন্ধ পাচ্ছি। আমার কাছে ধর্ম একটা অত্তন্ত বেক্তিগত বেপার। এর সাথে আমরা কেন পোশাক কে জড়িয়ে ফেলি। পোশাকি ধর্মীয় করণের কোনো প্রয়োজন আছে কি ? যে কোনো পোশাক পড়ে কি কেউ আল্লাহর নৈকট্ট পেতে পারে না ?

      ReplyDelete
    10. অনেকেই বলেন ধর্ম ব্যক্তিগত
      ধর্ম যদি ব্যক্তিগত হয় তবে পোশাকটা আমার একান্ত ব্যক্তিগত lআমি যে পোশাক পরে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবো তাই পরবো l
      এতে কারো কিছু বলার থাকতে পারেনা l
      আমি বিস্মিত হয়েছি যে যাঁরা মন্তব্য করেছেন পোশাক কিংবা ধর্ম নিয়ে তাঁরা কিন্তু আমার কবিতার ভালো মন্দ দিক নিয়ে কিছু বলেননি lযেটা আমার কাম্য ছিল l
      আমি সকলের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলছি যে আলোকরেখা একটি সাহিত্য অঙ্গন
      এখানে রাজনৈতিক কিংবা ধর্মীয় মন্তব্য থেকে বিরত থাকাটাইকি শ্রেয় l

      ReplyDelete
    11. আলোকরেখা একটি সাহিত্য অঙ্গন এখানে রাজনৈতিক কিংবা ধর্মীয় মন্তব্য থেকে বিরত থাকাটাই শ্রেয় l বিশেষ করে ব্যক্তিগত আক্রমণ এখানে করা যাবে না । আপনারা যারা আলোকরেখা পড়েন তারা খেয়াল করেছেন এখানে কোনদিন ধর্ম নিয়ে চর্চা করা হয় না। এটি একটু সম্পূর্ণ নিধর্মীয় ওয়েব সাইট। যারা এ ধরে মন্তব্য করেছেন তাদের কাছে আমার অনুরোধ এরপর যদি এমন কোন মন্তব্য করেন। তাহলে কর্তৃপক্ষ তাদের ব্লক করে দিতে বাধ্য হবে।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ