আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও অতঃপর ! - সুনিকেত চৌধুরী ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    অতঃপর ! - সুনিকেত চৌধুরী

     অতঃপর !

    - সুনিকেত চৌধুরী



    কল্পতরু আকাঙ্খায় দিক-বিদিক পরিভ্রমণের শেষ শিবিরে

    মোনালিসা চিত্রকল্পের সাথে তুলনা যদি করে

    হৃদ নগরের ট্যালেন্ট শো এর বিচারক

    বাহবা দিয়ে দাঁড়িয়ে যদি যায় তাবৎ দর্শক

    স্মিতহাস্যে তোমার হরিণ চোখের কোণায়

    ঝিলিক কি দেবে

    আমার সেই সাত সকালের চুমু?

    যাত্রা শুরুর সেই শুভক্ষণে

    সেই সকালের রৌদ্রের সাথে পাল্লা দিয়ে

    আমার তপ্ত হৃদয়

    আশীর্বাদের সব 'টা সুর আর তাল বেঁধে

    পরিয়েছিলো তোমার খোঁপায়।



    তারপর.......!
     http://www.alokrekha.com

    14 comments:

    1. রায়হান রফিকAugust 29, 2019 at 3:07 PM

      অতঃপর !- সুনিকেত চৌধুরীর বরাবরের মতই অতিব চমৎকার একটি কবিতা।পড়ে খুব ভালো লাগলো। এই যে চাকচিক্যের জীবনধারা সেখানে প্রকৃত ভালবাসা কি অচল ? খুব অনবদ্য সুন্দর করে বর্ণনা করেছেন। অনেক শুভেচ্ছা কবি।

      ReplyDelete
    2. মোহন সিরাজীAugust 29, 2019 at 3:29 PM

      আমাদের প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরীর অতঃপর ! কবিতাটা পড়ে খুব ভালো লাগলো।বাহ্যিক জীবনের ঝলমল আলো বাস্তব জীবনকে ম্রিয়মান করে দেয়। কবি সুনিকেতের কবিতায় তারই ছায়া আমরা দেখতে পাই। অতঃপর ! কবিতাও তার ব্যতিক্রম নয়। শুভেচ্ছা কবি

      ReplyDelete
    3. মৃন্ময়ীAugust 29, 2019 at 4:17 PM

      আমার অতি প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরী । এ যাবৎ তার কোন লেখাই আমি বাদ দেই নি পড়তে। হয়তো সব লেখাযা মন্তব্য লিখে করা হয় নি। কিন্তু মনে মনে অনেকবার বিড়বিড় করেছি। সুনিকেতের সাথে নিজে নিজে হাজারো কথা বলেছি। কিন্তু সে নীরব। অহংকারী !কোনদিন কোন মন্তব্যের উত্তর দে নি। আলোকরেখার কাছে আমার প্রশ্ন আপনারানা প্রায় সব লেখকদের ছবি পোস্ট করেন। কবি সুনিকেতের কোন ছবি প্রকাশ করেন না কেন। বাস্তবে তার কোন ছবি না পেয়ে মনে মনে তার ছবি আঁকি। বড্ড অভিমান হয়। তাই আজ অতঃপর ! কোন মন্তব্য করবো না। আমার প্রিয় কবির শুভাশীষ কামনা করি সর্বদা।

      ReplyDelete
    4. অমিয় সেনAugust 29, 2019 at 5:57 PM

      প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরী "অতঃপর ! " দারুন অনবদ্য কবিতা। কথার উপযুক্ত প্রয়োগ। উপমার বিশেষত্ব কবিতাকে এক ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে গেছে। যেমন "যাত্রা শুরুর সেই শুভক্ষণে সেই সকালের রৌদ্রের সাথে পাল্লা দিয়ে
      আমার তপ্ত হৃদয় আশীর্বাদের সব ক'টা সুর আর তাল বেঁধে পরিয়েছিলো তোমার খোঁপায়।" কথাগুলোর মাঝে অনন্য অসাধন উপমা খুঁজে পাই। দারুন এক কথায়। অনেক অনেক শুভ কামনা।

      ReplyDelete
    5. শাওলী সেন গুপ্তAugust 29, 2019 at 6:06 PM

      প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরী "অতঃপর ! " কবিতায় দারুন ভাবে উপমার প্রয়োগ করেছেন তাঁর কবিতায় এই ধারা দেখতে পাই।" সব ক'টা সুর আর তাল বেঁধে পরিয়েছিলো তোমার খোঁপায়।" বাস্তবের সাথে যে কবিতার প্রথাগত পার্থক্য তিনি এই একটি বাক্যে তুলে ধরেছেন। খুব ভালো লাগলো কবিতাটা কবি। ভালো থাকবেন।

      ReplyDelete
    6. প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরী "অতঃপর ! " কবিতা এক কথায় দারুন ।পৃথিবীর তাবৎ জাঁকজমক পূর্ণ ঘটনার আবেষ্ট -এ আমরা ভুলেযাই আপন জনের ভালোবাসা মাখানো শুভ কামনা গুলো। তাইতো মেকি বাহবা আর হাততালিতে ভুলে যাই আপনজনকেও। অনেক অনেক শুভ কামনা।

      ReplyDelete
    7. প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরী "অতঃপর ! " কবিতা নিয়ে এতো মন্তব্য বোধ করি একটু আদিখ্যেতা। পাঠক কবিতাটা ভালো করে পড়লে বুঝতে পারবেন এখানে মাত্রা ও শব্দ বিন্যাস অসামঞ্জস্যপূর্ণ। তিনি এখানে কোন মাত্রা ব্যবহার করেছেন যদি একটু বুলিয়ে বলতেন তাহলে বোদ্ধা পাঠকদের বুঝতে সুবিধা হতো।

      ReplyDelete
      Replies
      1. জনাব Anonymous আপনার যদি মনে হয় পাঠকেরা কবিতাটা ভীষণ পছন্দ করেছে এটা নিয়ে আপনার "আদিখ্যেতা" শব্দটা ব্যবহার করা উচিত হয়নি. এখানে আমরা ইশকুলে ব্যাকরণ শিখতে আসিনি. কবিতা ভালো লাগে তাই পড়তে এসেছি. ভালো কিছু বলার না থাকলে দয়া করে এমন মন্তব্য করবেন না.

        Delete
      2. মুনা চৌধুরীকে প্রতিবাদ করার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আমরা প্রায়শই অশভনীয় কোন কিছু দেখেও না দেখার ভান করি।মুনা চৌধুরীর প্রতিবাদকে সাধুবাদ জানাই ।

        Delete
    8. গিতালী দাসAugust 29, 2019 at 6:34 PM

      যদি আপনি একটু বুঝিয়ে বলতেন "বোদ্ধা পাঠক" বলতে কি বুঝিয়েছেন ? আমরা যারা কবিতা পড়ি ভালোবেসে পড়ি। বিশেষ করে কবি সুনিকেতের সব কবিতা। ভালো লাগে তাই পড়ি। এখানে মাত্রা ও শব্দ বিন্যাস অসামঞ্জস্যপূর্ণ কিনা তা তার কবিতার মূল বিষয় নয়। তার কবিতায় তিনি যে বার্তা দেন তাই আমাদের আকৃষ্ট করে।

      ReplyDelete
      Replies
      1. কবিতা অংকের মত। এখানে সূত্র ও কবিতার ব্যাকরণ মেনে চলতে হয়। কবিতা পূজা আর কবি পূজারী সেই কথাটা মাথায় রেখেই কবিতা লিখতে হয়। তাছাড়া কবিতা সাধনার বিষয়। বহু সাধনার ফসল একটি কবিতা।

        Delete
      2. গিতালী দাসAugust 29, 2019 at 6:47 PM

        এতো কথা জানি না আমি আপনার মতো বোদ্ধা পাঠক নই। আমার কবি সুনিকেতের কবিতা ভালো লাগে। আর এও বলতে পারি আলোকরেখার অন্যতম জনপ্রিয়তার কারণ কবি সুনিকেত চৌধুরীর কবিতা। আর আপনি এতই বোদ্ধা হয়ে থাকলে নিজের নামটি প্রকাশ করুন।

        Delete

    9. - সুনিকেত চৌধুরী এবং তার অতঃপর পড়ে অনেক ভালো লাগলো. শুভেচ্ছা কবি. আপনি লিখে যান আর আমাদের সব সুন্দর সুন্দর কবিতা উপহার দিন এই কামনায়.

      ReplyDelete
    10. রায়হান রফিকSeptember 20, 2019 at 3:44 PM

      কবি সুনিকেতের কবিতা বারবার পড়লেও নতুন লাগে। অতঃপর !- সুনিকেত চৌধুরীর বরাবরের মতই অতিব চমৎকার একটি কবিতা।পড়ে খুব ভালো লাগলো। এই যে চাকচিক্যের জীবনধারা সেখানে প্রকৃত ভালবাসা কি অচল ? খুব অনবদ্য সুন্দর করে বর্ণনা করেছেন। অনেক শুভেচ্ছা কবি।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ