আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও নিস্তব্ধতা -------- মুনা চৌধুরী ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    নিস্তব্ধতা -------- মুনা চৌধুরী

    নিস্তব্ধতা
    মুনা চৌধুরী


    আজ তুমি আমার ভেতরে এসো
    : নাও
    সেই গোধূলি যা তোমার নয়
    : হও
    আমায় ঘিরে যা হতে চাও
    : আঁকো
    রং তুলি দিয়ে
    লাল কৃষ্ণচূড়া, নীলাভ কষ্ট
    বেগুনী প্রেম, শুভ্র মৃত্যু
    ঘরবাড়ি, মানুষ আর ঝলমলে বাজপাখি
    : সুরের ব্যাঞ্জনা তোলো
    বীণায় বাগেশ্রী, ভৈরবী, দরবারী
    বেদনার মূর্ছনায় রাঙিয়ে দাও
    মুগ্দ্ধ করো সুরের ঝংকারে    
    : লিখে যাও প্রেমের পংক্তিমালা
    নাও যেভাবে চাও
    ঝোড়ো হাওয়ায়, বুনো বাতাসের উন্মত্ততায়
    উড়িয়ে দাও
    উড়িয়ে দাও
    আমায় নাও ...
    আবার নাও
    আবারও নাও
    বারবার নাও
    ভালোবাসা ছাড়াই নাহয় নাও
    ছুঁয়ে যাও
    স্পর্শ করো
    পবিত্র করো আমায় যখন-তখন

    তারপর
    কাল বৈশাখীর উন্মত্ততার ঝোড়ো তান্ডবে আমরা দুজন...

     http://www.alokrekha.com

    8 comments:

    1. মেহরান আহমেদJanuary 18, 2020 at 4:10 PM

      মুনা চৌধুরীর নিস্তব্ধতা কবিতা প্রেমমূলক কামনার কবিতা। আমাকে নাও সম্পূর্ণ করো এই কথা গুলো প্রযোজ্য। খুব ভালো লাগলো কবিতাটা।

      ReplyDelete
    2. মিতা রহমানJanuary 18, 2020 at 4:18 PM

      মুনা চৌধুরী নিস্তব্ধতা কবিতায় প্রণয়জ্ঞাপনের সাহসিকতার পরিচয় দেয়। সকল কিছু দিয়ে প্রতিদানে নিজেকে সমর্পন করা অনেক বড় কথা। কবিতাটা অনেক বার পড়লাম একেকবার এক এক রকম লাগে। কবি খুব ভালো হৃদয়স্পর্শী কবিতা হয়েছে। ভালো থাকবেন।

      ReplyDelete
    3. বেলাল বেগJanuary 18, 2020 at 5:43 PM

      মুনা চৌধুরী নিস্তব্ধতা কবিতায় প্রণয় ছাড়িয়ে দেহমিলনের যাবে উৎকৃষ্ট। খুব ভালো লাগার কবিতা। আমার ভেতরে এসো-নাও আমাকে সেই গোধূলি যা তোমার নয়--এখানে কবর মাংস প্রণয়ী তার নিজের নয় তবুও ভালোবাসা কি আটকে রাখা যায়। পুরোপুরি সমর্পনের আকাঙ্খাই কবির। অনেক ভালোবাসা কবি।

      ReplyDelete
    4. সুমনা চৌধুরীJanuary 18, 2020 at 6:00 PM

      মুনা চৌধুরী নিস্তব্ধতা প্রেম নিবেদনের অনবদ্য কবিতা।ছুঁয়ে যাও
      "স্পর্শ করো পবিত্র করো আমায় যখন-তখন ।" ভালোবেসে কাছে এসে স্পর্শ করলে সে হয় পবিত্র। হয়তো অনেকের মনে হতে পারে এ দেহ মিলনের বাহ্যিক কবিতা। কিন্তু এ সমর্পনের কবিতা। এখানে দেহ মিলনে এসেছে আধ্যাত্মিক রূপ। অনেক ভালো হয়েছে। শুভেচ্ছা কবি।

      ReplyDelete
    5. সেজাদ রহমানJanuary 18, 2020 at 6:10 PM

      মুনা চৌধুরী নিস্তব্ধতা প্রেম ও মিলনের অনবদ্য কবিতা।খুব ভালো লাগলো। বহুবার পড়েছি। ভালো থাকবেন কবি।

      ReplyDelete
    6. অভীক চৌধুরীJanuary 18, 2020 at 10:57 PM

      মুনা চৌধুরী নিস্তব্ধতা মিলনের অনিন্দ্য কবিতা।খুব ভালো লাগলো। মিলনের আনন্দ যেন রং তুলি দিয়ে আঁকা লাল কৃষ্ণচূড়া, নীলাভ কষ্ট বেগুনী প্রেম, শুভ্র মৃত্যু ঘরবাড়ি, মানুষ আর ঝলমলে বাজপাখি ।মিলন মানে সুরের ব্যাঞ্জনা তোলো বীণায় বাগেশ্রী, ভৈরবী, দরবারী বেদনার মূর্ছনায় রাঙিয়ে দেওয়া মুগ্ধ করা সুরের ঝংকারে।অপূর্ব ভাবে কবিতায় অংকিত হয়েছে। অনেক ভালো লাগলো কবি।শুভ কামনা

      ReplyDelete
    7. খুব ভাল লেখা। যুগ যুগ ধরে মানুসের এই চাওয়া।তবে ভালবাসা ছাড়া মিলন হয় না।

      ReplyDelete
    8. মুনা চৌধুরী নিস্তব্ধতা অনন্য কবিতা।খুব ভালো লাগলো। মিলনের ভাষা মুধুর থেকে মধুর হয়। কবিতার কবিতায় তা প্রতীয়মান। মিলন মানে সমর্পিত হওয়া দুজনের কাছে দুজনে। অনেকবার পড়া হল। ভালো থাকবেন কবি।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ