আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও ২৫ লক্ষ ভালোলাগা স্পন্দন ! ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    ২৫ লক্ষ ভালোলাগা স্পন্দন !

    ২৫ লক্ষ ভালোলাগা স্পন্দন !

    দম বন্ধ হয়ে আসা এই প্রকোষ্ঠের সব 'টা জানালা আজ খুলে দেয়া যাক ! আর উঁকি দিয়ে রাতের আকাশের যত তারা তার সবগুলো গোনা যাক - এরসাথে যোগ হোক আমাদের উপলব্ধি যে এরপর থেকে আমরা এমনি করে গুনবো আমাদের জীবনের আশীর্বাদগুলো ! আমাদের মাথায় বর্ষে দেয়া আমাদের মায়েদের আঁচল ভরা যত আশীর্বাদ , বিশুদ্ধ বাতাসের আশীর্বাদ, অবারিত বিশুদ্ধ পানির আশীর্বাদ,  আদিগন্ত আকাশভরা নীলের আশীর্বাদ।  


    সবশেষে দিগন্তের ওই আলোকরেখার ধার ঘেঁষে পঁচিশ লক্ষ ভালোলাগা স্পন্দনের উপহার নিয়ে দাঁড়াবো হাতে হাত ধরে ! ঘোষণা দেবো : সত্যম শিবম সুন্দরম! আমরা সৃষ্টির সৃষ্টির অংশ ! আমরা স্পন্দনে স্পন্দনে মিলেমিশে একাকার


    সানজিদা রুমি কর্তৃক গ্রথিত http://www.alokrekha.com

    5 comments:

    1. মাসুম রেজাApril 27, 2020 at 10:46 PM

      সানজিদা রুমি ও আলোকরেখাকের চলার পথ সুন্দর সুগম ও সুললিত হোক এই কামনা করি -- ভালবাসা আর অভিনন্দন!

      ReplyDelete
    2. মিতা রহমানApril 27, 2020 at 11:14 PM

      আলোকরেখা ২৫ লক্ষ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করেছে ।এর সামনের চলার পথ আরো সুন্দর হোক ।এবারের লেখাটা কি অপূর্ব। কি লেখার গাঁথুনি তেমনি বার্তার বিনুনি। সব মিলিয়ে চমৎকার ,অনন্য।

      ReplyDelete
    3. শর্মিষ্ঠা সেনApril 27, 2020 at 11:17 PM

      অন্তরের অন্তরতম অভিনন্দন! আলোকরেখা! বিমুগ্ধ পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে তোমার অঙ্গীকার আলোকরেখাকে আরও বহুদুর নিয়ে যাক- এই শুভকামনা!আর লেখাটা যে কি দারুন হয়েছে তা বলার নয় ।ভাল থেক !!!

      ReplyDelete
    4. কামরুজ্জামান হীরাApril 28, 2020 at 3:32 PM

      অল্প সময়ে আলোকরেখা এত জনপ্ৰিয়তা পাবার কারণ রুমির একাগ্রতা ও লেখার মান। আরো সুশোভিত নয়নাভিরাম ওয়েব সাইট। এতো সুন্দর সাজানো গোছালো। আসলেও সংগ্রহ শালা। আলোকরেখা আমাদের সব সময় প্রিয় ও থাকবে ।সত্য ও সুন্দরের জয় হোক ! অভিনন্দন!

      ReplyDelete
    5. নিরাভরণ আর নিরাসক্ত শব্দ দু'টো কেন যেন বারে বারে মনে আসছে আজ বিকেল থেকে। আমাদের দৈনন্দনিতায় আমরা নিরাভরণ হতে পারি, আমরা বিনয়ী হতে পারি এবং এতে যে আমাদের মানসিক ও আত্মিক উৎকর্ষ সাধন হয় তাতে আমরা মনোযোগী হতে পারি আমাদের আসলেই কোনটা বেশী তাৎপর্যপূর্ণ সেই বিষয়ে! অন্তত বর্তমানের কোরোনা উদ্ভুত পরিস্থিতি অনেকটা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়ার মতো করে আমাদেরকে তা সম্ভবত বুঝিয়ে দিয়েছে !

      আর নিরাসক্ততা প্রকাশ করে আমরা "কোন কিছুতেই কিছু এসে যায় না" জাতীয় একটা মনোভাব পোষণ করে আমাদের দৈনন্দিন জীবনের কাজ ও অকাজগুলোর দিকে তাকাতে পারি। আমরা কোন প্রসঙ্গ এলে বলতে পারি "হয়েছে, তো কি হয়েছে!" কোন অর্জন, বিসর্জন, ত্যাগ, প্রাপ্তি, লক্ষ্যে পৌঁছানো, ইত্যাদি বিষয়গুলোকে "কোনো ব্যাপার না!” জাতীয় একটা ভঙ্গী করে নিরাসক্ততার পরাকাষ্ঠা দেখতে পারি !

      কিন্তু আজ আমার একবার মনে হলো যে আমাদের সম্ভবত স - ব কিছুতেই নিরাসক্ততা দেখানো ঠিক হবেনা ! যেমন ধরা যাক, "আলোকরেখা"র ২৫ লক্ষ পাঠকধন্য হবার এই আনন্দঘন মুহূর্তটিকে যদি আমি "কোনো ব্যাপার না " বলে একটা অর্জন, একটা সম্মিলিত অর্জন, একটা সুন্দর কোনো উপলব্ধি হিসেবে ইংরেজীতে যেটাকে বলে celebrate না করি - এখানে আমি যদি নিরাসক্ত শব্দটার প্রকৃত প্রয়োগ করি তাহলে সেটা সমীচীন হবেনা! আমার মনে হয় এই কারণটাকে প্রনিধাণযোগ্য হিসেবে ব্যবহার করে সমাজ বিজ্ঞানী ও সমাজ হিতৈষীরা সামাজিক ও গোষ্ঠীবদ্ধ অনুষ্ঠান বা Celebration এর প্রচলন শুরু করেছিলেন !

      নিরাভরণ যেমন আমার পছন্দের, ঠিক তেমনি করে "সত্যম শিবম সুন্দরম" এর জয়গানে নিরাসক্ত থাকাটাও সমানভাবে অপছন্দ করি ! তাই আমি "আলোকরেখা"র এই রজত জয়ন্তীতে অনেক অনেক সন্মান আর শ্রদ্ধার ফুল দিয়ে এর নাবিক সানজিদা রুমীকে, তাঁর এই কাজকে, এর সাথে সংশ্লিষ্ট সব লেখককে এবং সবার ওপরে এর একনিষ্ঠ পাঠক সমাজকে অভিনন্দন জানাতে চাই!

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ