আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও মায়েদের খেলাঘর ! ------------ সুনিকেত চৌধুরী। ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    মায়েদের খেলাঘর ! ------------ সুনিকেত চৌধুরী।

    মায়েদের খেলাঘর !

    - সুনিকেত চৌধুরী।

    ক্লাসরুমের দেয়ালে ব্ল্যাকবোর্ড

    আর হাতে ধরা খড়িমাটি

    উত্তর লিখেনা কোনো !

    বদলে যায় তাবৎ আকার বর্ণমালার

    মিলে-মিশে একাকার

    নিকষ কালো অন্ধকার!

    জীবিকার অন্বেষণে জুবু-থুবু জীবন

    উঠোনের চৌহদ্দি পেরোনোর ক্ষমতা রহিত ইদানীং !

    স্বপ্নেরা সারথি হয়ে

    পসরা সাজাবে বৈশাখী মেলায়

    দূরের গেরাম থেকে শালিক পাখীরা এসে

    সাজাবে মঞ্চ,

    মালঞ্চ-মন্দাকিনী মঞ্জরী নিয়ে গান গেয়ে

    মন্ত্রমুগ্ধ করে দেবে সমবেত সকল হৃদয় !

    এই আশাবাদ ব্যক্ত করে

    নিয়মের ব্যত্যয় বাঁচিয়ে

    আলোকের বলয়ে হোক

    আমাদের যাত্রা বিরতি।

    এসো গান ধরি

    হাতে হাত রেখে

    দাদরা কিংবা কাহারবা তালে।

    তাথৈ তা-থৈ আমরা সবাই

    একসাথে চল যাই

    আমাদের নানা-বাড়ী,

    যেখানে পাতা আছে

    আমাদের মায়েদের সেই ছোটবেলা

    আর বড় হয়ে ওঠা!

    চলো খুঁজে দেখি মায়েদের খেলাঘর

    লুকোচুরি, চড়ুই-ভাতি, কাঁশবন

    মায়েদের বৈশাখী মন,

    আর দিগন্ত বিস্তৃত নীলাকাশ!

     
    http://www.alokrekha.com

    5 comments:

    1. শফিক রায়হানMarch 28, 2021 at 6:52 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর "মায়েদের খেলাঘর !" একটি অনুপম কবিতা। বরাবরের মত কোনই এই কবিতায় তার বিশেষ গুনের ছাপ পাওয়া যায়। আপন মহিমায় আপনি উদ্ভাসিত। অনন্য উপমা।কবির হৃদয় নিংড়ানো অনুভূতির কি গভীর প্রকাশ। খুব ভালো লাগলো প্রিয় কবি । ভালো থাকবেন।

      ReplyDelete
    2. মালতি লতাMarch 28, 2021 at 7:02 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর "মায়েদের খেলাঘর !" অতুলনীয় কবিতা পড়ে খুবই ভালো লাগলো। ।কবি সুনিকেত চৌধুরীর কবিতায় যে উপমা ব্যবহার করেন তা অনন্য। অনেক শুভেচ্ছা।

      ReplyDelete
    3. রেহানা সুলতানাMarch 28, 2021 at 7:12 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর কবিতায় এক ধরণের মাদকতা আছে। উপমা ও বর্ণনায় এক মেলবন্ধন তৈরী করে। "মায়েদের খেলাঘর !" অতুলনীয় কবিতা পড়ে খুবই ভালো লাগলো। অনেক ভালোবাসা। ভালো থাকবেন।

      ReplyDelete
    4. মিতালী চক্রবর্তীMarch 28, 2021 at 7:18 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর "মায়েদের খেলাঘর !" কবিতায় কবির হৃদয় নিংড়ানো অনুভূতির কি গভীর প্রকাশ। কবি মনের সাধনা ও বর্ণনা তার কবিতায় অংকিত করেছেন। দারুন একটা কবিতা। অনেক ভালো লাগলো কবি। ভালোবাসা

      ReplyDelete
    5. রায়হান সোবহানMarch 28, 2021 at 9:26 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর "মায়েদের খেলাঘর !" কবিতায় কবির কবিতার উপর যে ভালোবাসা আছে তা প্রতীয়মান হয়। এখানে যে উপমা ব্যবহার করেছেন তাও অনন্য। সর্বপরি কবিতার ছন্দ ও বর্ণনা প্রশংসনীয়। আলোকরেখাকে অনেক ধন্যবাদ আমাদের প্রিয় কবির কবিতা প্রকাশের জন্য।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ