আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও আহা পাখি -------------- মেহরাব রহমান ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    আহা পাখি -------------- মেহরাব রহমান

     

    আহা পাখি

    মেহরাব রহমান

     আহা পাখি

    তোমার ডানা জোড়া / রূপঙ্কর /রূপকথার / মুগ্ধ জগৎ / ধোঁয়া ধোঁয়া / আলোছায়া / মায়াবী আকাশ / জাদুকরী স্বপ্নবিলাশ / বাহ্ কী ভ্রাম্যমান পরান  / এক অভিনব অদ্ভুত আমি / তোমার আমিত্ব নিয়ে বসে থাক / বিমূর্ত বৈঠকখানায় / তোমার  নির্বাচিত ঘর নেই / নীড় নেই / সংসারের ভীড় নেই / নেই ঘরে ফেরার তুমুল  তাগিদ / পাখি এই সব ভেবে ভেবে  / আমার খুব ঈর্ষা হয়

     


    আহা পাখি

    তোমার কী ভীরু চঞ্চলতা / ঝড়ো হাওয়ায় / উন্মাতাল ছুটে চলা / দিকবিদিক / ঠিকানা নেই / নেই দেশ / প্রদেশ / গ্রাম কিংবা শহরের / জমকালো নামের বাহার / বাড়ির নাম্বার / পোস্টাল কোড / ডাকবাক্সে সাদাখামে লালচিঠি / নীল খামে নীল প্রেমপত্র / বাদামি খামে ভয়ভয় / সরকারি নোটিশ / এইসব ঝুক্কি-ঝামেলা নেই / ভাই তুমি বেশ আছ / মুক্ত আকাশ / যে কোনো প্রহরে / সকালে কি সন্ধ্যায় / রাতের সুনসান নীরবতায় / ডানা মেলে উড়ে যাওয়া অচেনা আকাশে / দূর কোনো অরণ্য বৃক্ষ শাখায় / বনবীথিকায় / যেথায় সেথায় / পাতায় পাতায় / বিস্ময় ভ্রমণ

     



     

    আহা পাখি

    দৈনন্দিন তেলনুন / চালডাল / ঘর গেরস্থালি / তৈজষপত্রের হিসাব / আসবাবের ধূলি মোছা / রসইখানায় রাঁধতে রাঁধতে / প্রিয় জামায় / প্রিয় শাড়ীতে তরকারির ঝোল / হলুদের ছোপ লাগা / দুঃখচিহ্ন / ইত্যাকার ছোটখাটো সংগ্রাম / এইসবের  মুখোমুখি হতে হয়না / কিংবা মহামারী / মারি ও মড়কে / গণমাধ্যমে / বিলুপ্তির অশনি সংকেত / বর্তমান জীবাণু যুদ্ধে / অগণন মানুষের মৃত্যু সংবাদ শুনতে হয়না / কবর / শ্বশান / কাফনে মোড়ানো দাফন / মনুমেন্ট / গির্জায় / চার্চে / মসজিদে / জানাজায় / প্রার্থনায় / আনুষ্ঠানিক চির বিদায়ের মধ্যে দিয়ে / মানুষের মতো করে মৃত্যু কষ্ট বইতে হয়না /জানি পাখি তবু তুমি ভয়ঙ্কর একা / আমরা মানুষেরা বুকটান করে বলি / আমি একা নই / এবং দুবেলা / বীরদর্পে ঝান্ডা উড়াই / বেঁচে আছি বলে / আসলে বাঁচার মতো না বেঁচে কতটাই বেঁচে আছি বল ?

     


    আহা পাখি

    আয়ুষ্কাল কত / তোমার জন্ম পরিধি /কখন কোথায় মৃত্যু / কে জানে / গণমাধ্যমে তোমার  অসুস্থতা / কিংবা মৃত্যু সংবাদ প্রচারিত হয় কদাচিৎ / হয়তো বিজ্ঞান-গবেষণার কারণে / কখনো কখনো প্রযুক্তির মনিটরে / ভেসে ওঠে / পাখিদের অনিন্দ্য জীবন

     


    আহা পাখি

    বেশ আছো / বাড়িভাড়া / মর্গেজ / মোবাইল ফোন / ডাক্তার / ঔষধ / অন্তর্জাল / ইত্যাকার বিল পরিষদ করতে করতে / অবসন্নতার অবশ আঁধারেডুবে যেতে হয়না  / বিপন্নতা কিংবা সফল জীবনে কতটা সুখ / যোগ-বিয়োগ-গুনভাগ /এতসব অংক মেলাতে মেলাতে / যাপিত জীবনের /এতসব টানাপড়েনে / ভুগতে হয়না / ওহে পাখি / তোমার সরল জীবন / সরল অংক নিয়ে / কেটে যায় বেলা ...

     



    আহা পাখি

    পালা পার্বনে / উৎসবে / মজলিশে / যুগল জীবনে / জোড়া সাথির / শাড়ীর সাথে ম্যাচ করা পাঞ্জাবি / পাঞ্জাবির সাথে শাড়ী / কপালের টিপ্ কিংবা ঠোঁট পালিশের / নখ পালিশের / রং মেলানো অথবা সোনার কাঁকন / ভারী গহনার ভার বইতে হয়না / সইতে হয়না প্রিয়তমের গঞ্জনাকিংবা প্রেয়সীর লাঞ্ছনা

     



    আহা পাখি

    তোমার করোটির ভেতর / দেহমনে / অধরা রঙের জলসাঘর / যখন  তুমি মাছরাঙা / যেনবা সুবর্ণ আসমানী কিতাব / সূর্যের সাতরং/ রংধনু রঙ / অলৌকিক বালিকণা শরীরে মাখো / জলের সঙ্গে / মাছের সঙ্গে / জলতরঙ্গ-জলচ্ছাসেহুলুস্থূল মশগুল সময় / অঙ্গে অঙ্গে বাজে তরঙ্গ / তখন তুমি নাচ / নাচ ময়ূরী নাচরে / আহা মনমাতানো ময়ূরকন্ঠি রং / তুমি নীল নয়না কাকাতুয়া / গায়ে থাকে  / নানাবর্ণ পশমি জামা / সুবর্ণ পালকের লজ্জাঢাকা পাৎলুন 

     


     আহা পাখি

    শান্তির পায়রা / উড়ে উড়ে সাহসী পরিব্রাজক / কখনো গাংচিল হয়ে / দুরন্ত গতিবেগে উড়তে উড়তে / ডুবন্ত নাবিকের ভাঙা মাস্তুলে বসো / নাবিকও সাহসী হয় / হঠাৎ হাওয়ায় / জেগে উঠে / জাহাজ ডুবি নাবিক পুনরায় মৃত্যুর সাথেপাঞ্জা লড়ার সাহস নিয়ে

     


    আহা পাখি

    যখন তুমি আলবাট্রস / দুরন্ত পাখায় উড়ন্ত গতিতে নিরুদ্দেশ যাত্রা / পৃথিবী ভ্রমণ / কাঁটাতার বেড়া নেই / সময় ঘড়ির কাঁটা নেই / সীমান্ত সীমা নেই / যেখানে যখন / যত্রতত্র নোঙরের  স্বাধীনতা / উড়োজাহাজ বন্দরের ঝুক্কিঝামেলা নেই

    O Bird ! You are born not to Cross the burdened  barrier Of immigration, customs,

    Security check, and to Collect the luggage from the  Conveyor belt that Accommodates Sufferings Of  obnoxious waiting time And to carry the weight of This material world

    Etcetera etcetera etcetera

     

    আহা পাখি

    পাখি তুমি / মৃত্যুর মতো /পূত পবিত্র সুন্দর/ পাপশুন্য / কাফনে-কফিনে ঢাকাঅলৌকিক / অধরা চাদর / কল্যাণীয়া সত্যসুখজাগানিয়া / ঐশ্বিক পরান / বুনে যাও  / ইন্দ্রজাল মানচিত্রে  / সুখ-তারা / অব্যয় / অক্ষয় / অভিনব / এক অনির্বান প্রেম

    আহা পাখি

    পাসপোর্ট / ভিসাহীন / বারবার উড়বার / অবারিত আকাশ / তোমার জন্মগত অধিকার

     


    আহা পাখি

    এই ধরণী / ভাসমান ভাঙা নৌকোর ছেঁড়া পাল / লেনদেন / বেচাকেনা / বিকিকিনির হাট / আমি কড়ি দিয়ে কিনতে চাই তোমার জীবন

    আমি আর মানুষ নেই

     



    শোনো পাখি

    শর্ত ছাড়াকি কোনো চুক্তি হয় ?

    তিনদিন / তিনবার / তিনখান / কড়ি দেব

    বিনিময়ে / দেবেকি আমাকে / তোমার অমৃত পরান ? ভেবে দেখো একবার / চুক্তিনামা: অপরূপ / রূপের ভেলা

    নন্দন তত্ত্বে নির্মিত / অভূতপূর্ব অবাক

    দলিল

     



    এক কড়িতে :

    পেতে চাই / সূর্যের সাতরঙ / রামধনু /একজোড়া শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত পাখনা / সুনামি-ঝড়ের / গতির / উড়বার দুর্বারস্বাধীনতা

     


    দুই কড়িতে :

    হায় চিল ! তোমার অদ্ভুত / উজ্জ্বল / ডানা চাই / সোনালী ডানা / উড়ে উড়ে কাঁদবার নয় / বীজবপনে / ভালোবাসা আবাদে / ঘরেঘরে / লোকালয় থেকে লোকলয়ে / লোক-অন্তরে / মানুষের আত্মজ আত্মার / নষ্ট-ঘরে / এই অনন্ত প্রেম / রোপিত করতে

    চাই / সকলের লৌকিক জীবনে 

     


    তিন কড়িতে :

    পাখি চাই / তোমাদের ঐশ্বিক  / আহার-বিহার / জাদুবাস্তব  / ইন্দ্রজাল  / একদানা শস্যকনা / অমৃত পানীয় / ফোঁটাফোঁটা শীতের কুয়াশা / শিশিরের জল / শুধু একবার / যেন কেটে যায় ক্ষুধাহীন  নিযুত আলোকবর্ষ



    আহা পাখি

    রূপনগরের জাদুকর / দেবে তুমি / আমাকে তোমাদের / তামাদি জীবনের / টুকরো টুকরো / যোগ ফল  / রূপকথার গল্প / রহস্যময় / এক অন্তহীন অলৌকিক / অক্ষয় / অব্যয় / অবিনশ্বর জীবন 

     

    আহা পাখি

    যদি মেনে নাও / যদি দাও আমাকে/ চুক্তিনামায় বর্ণিত  /ঐসব উপঢৌকন / এবং যখন রোপিত হবে সব মানুষের / অভ্যন্তরের / গোপন সিন্দুকে / এক  মানবিক বিস্ময় / নির্মোহ প্রেম / প্রেম শুধু প্রেম / দেখো পাখি দেখো / তোমার অনন্ত জীবন নিয়ে / আমি একদিন / ঠিকঠিক উড়ে যাব / দূরে যাবো / জানিনা কখন / কোন অচেনায়  / অসম্ভবের অলঙ্ঘ্য / দেয়াল টোপকে  / কোন অচিন ঠিকানায়

     


    http://www.alokrekha.com

    25 comments:

    1. রায়হান সোবহানApril 5, 2021 at 4:37 PM

      কবি মেহরাব রহমান "আহা পাখি" কবিতায় যে আশা ব্যক্ত করেছেন তা অনন্য। আমাদের সবার কথা কবি তার কবিতার তুলিতে এঁকেছেন। খুব সুন্দর ভিন্নধর্মী কবিতা যা হৃদয় স্পর্শী। খুব ভালো লাগলো। অনেক অভিনন্দন কবি।

      ReplyDelete
    2. ড: আব্দুস সামাদApril 5, 2021 at 5:13 PM

      নিরীক্ষা ধর্মী কবি মেহরাব রহমান "আহা পাখি" কবিতায় পাখির জীবনের সাথে মানুষের জীবনের বিনিময় করার যে প্রয়াস করেছেন তা প্রসংশনীয়। খুব ভালো লাগলো পড়ে। অনেক শুভেচ্ছা এতো সুন্দর কবিতা উপহার দেবার জন্য।

      ReplyDelete
    3. মিতালী সেন গুপ্তাApril 5, 2021 at 5:22 PM

      কবি মেহরাব রহমানের নিরীক্ষা ধর্মী "আহা পাখি" লেখা প্রশংসনীয়। এই দীর্ধ লেখনীকে আমি কবিতা না বলে লেখা বলছি। এখানে কবি মেহরাব রহমান পাখির জীবনের সাথে মানব জীবনের তুলনা করেছেন বর্ণনার সাথে। বর্ণনা অনন্য ও অপ্রতিম।

      ReplyDelete
    4. নরেশ বসুApril 5, 2021 at 5:47 PM

      কবি মেহরাব রহমানের নিরীক্ষা ধর্মী "আহা পাখি" দীর্ধ দৃষ্টি নন্দন কবিতা সত্যিই প্রশংসনীয়। এখানে কবি মেহরাব রহমান পাখির জীবনের বর্ণনার করেছেন নন্দনীয় । পাখির জোড়া দানা মেলে উড়ে বেড়ায় মুক্ত আকাশে। আমরা চেয়ে থাকি সেই মুক্ত বিহঙ্গের দিকে। মনের মধ্যে আশা জাগে যদি আমিও পারতাম এই ভেবেই মনে ঈর্ষা জাগে। খুব ভালো হয়েছে কবি।

      ReplyDelete
    5. অজিত সাহাApril 5, 2021 at 8:21 PM

      কবি মেহরাব রহমানের "আহা পাখি" দীর্ধ দৃষ্টি নন্দন কবিতা প্রশংসার দাবিদার।
      ভীরু চঞ্চলতা ঝড়ো হাওয়ায় উন্মাতাল ছুটে চলা দিকবিদিক ঠিকানা নেই নেই দেশ প্রদেশ গ্রাম কিংবা শহরের জমকালো নামের বাহার বাড়ির নাম্বার পোস্টাল কোড। পাখি বেশ আছে মুক্ত আকাশ যে কোনো প্রহরে সকালে কি সন্ধ্যায় ডানা মেলে উড়ে যাওয়া অচেনা আকাশে দূর কোনো অরণ্য বৃক্ষ শাখায়। আমরা মানুষরা কি বিস্ময় ভ্রমণ করতে পারি ? তাইতো কবির সুরে সুর মিলিয়ে বলতে চাই আহা পাখি।

      ReplyDelete
    6. রেহানা সুলতানাApril 5, 2021 at 8:33 PM

      কবি মেহরাব রহমানের "আহা পাখি" দীর্ধ হলেও খুব সুন্দর কবিতা যা প্রশংসার দাবিদার। পাখির যোবন যদি পেতাম কি ভালই না হতো। কবি মেহরাব রহমান সেটাই কবিতার তুলির আঁচড়ে অংকিত করেছেন। অনেক শুভ কামনা কবি।

      ReplyDelete
    7. আহসান হাবীবApril 5, 2021 at 9:07 PM

      কবি মেহরাব রহমানের "আহা পাখি" খুব সুন্দর কবিতা যার যত প্রশংসা করি কম। পাখিদের পালা পার্বনে উৎসবে মজলিশে যুগল জীবন কোনকিছুই সইতে হয় না। আহা পাখির জীবন কত মধুময়। নেই কোন সামাজিক প্রতিযোগিতা নেই কোন লক ডাউন। উন্মুক্ত জীবন আহা পাখি যদি আমার হত। এই বন্দি দশায় আলোকরেখায় এমন একটি লেখা পড়তে পেরে খুব ভালো লাগলো। ভালো থাকবেন ! সাবধানে থাকবেন !

      ReplyDelete
      Replies
      1. ভাই কৃতজ্ঞতা সুন্দর মন্তব্যর জন্য

        Delete
    8. "তোমার ডানা জোড়া / রূপঙ্কর /রূপকথার / মুগ্ধ জগৎ / ধোঁয়া ধোঁয়া / আলোছায়া / মায়াবী আকাশ / জাদুকরী স্বপ্নবিলাশ / বাহ্ কী ভ্রাম্যমান পরান " - ভীষণ ভালো লাগল।

      ReplyDelete
      Replies
      1. কৃতজ্ঞতা আমার প্রিয় কবি
        ভালোবাসা নিরন্তর

        Delete
    9. মেহরাব রহমান এর কবিতার সবচাইতে ভালো যে দিক আমার কাছে লাগে তা হলো কবির নিরীক্ষা এবং নুতন ভাবে কোনো নতুন কিছু পাঠকের সামনে উপস্থাপন করা। পাখি নিয়ে তেমন একটা বাংলা কবিতা পড়িনি তাই কবিকে ধন্যবাদ পাখি আর মানবজীবনের অনবদ্য উপস্থাপন আমাদের সামনে তুলে ধরবার জন্য। কবির কবিতা ফরিদউদ্দিন আত্মার এর Conference of the Bird মনে করিয়ে দিলো যেখানে বিভিন্ন প্রজাতির 'পাখি' দল ঈশ্বরের অন্বষণে পাহাড়ের পর পাহাড় ছুটে বেরিয়েছিল। ধন্যবাদ আর ভালো থাকবেন

      ReplyDelete
      Replies
      1. আপনার মন্তব্য সব সময় আমাকে ভীষণভাবে উদ্দীপ্ত করে কারণ আপনি আমার কবিতার আশানুরূপ ব্যাবচ্ছেদ করতে সক্ষম
        এবং আমি যে সুচিন্তিতভাবে কবিতা নিয়ে নিরীক্ষা করি তা বুঝতে পারেন
        আমার প্রভু আমাকে খুব বিচ্ছিন্ন ভাবে ভাবনাগুলো দেন
        যা আমার মাথায় তালগোল পাকিয়ে ফেলে
        এরকম দীর্ঘ কবিতা লিখতে মাসাধিক সময় লেগে যায়
        আমার মনোপুত না হলে কিছুতেই প্রকাশ করিনা
        খসড়া দিনের পর দিন পড়ে থাকে
        যাই হোক মুক্ত প্রশংসার জন্য অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাই

        Delete
    10. চমৎকার সব কবিতা ...সু্ন্দর ,মনোহর পাখীকূলের বন্দনা,মানুষের প্রাত্যহিক জীবন,জীবন আচরণের সাথে মিল খোঁজা অতুলনীয় লাগলো।অনেক শুভকামনা রইলো কবির জন্য।

      ReplyDelete
      Replies
      1. চমৎকার মন্তব্যর জন্য অন্তহীন কৃতজ্ঞতা

        Delete
    11. খুব খুব ভালো কবিতা। এইভাবে জীবনের সাথে সংযুক্ত করা, এমন‌ করে দেখার ক্ষমতা সবার থাকে না। ধন্যবাদ কবিকে এমন অপূর্ব কবিতা উপহার দেয়ার জন্য, বাংলা সাহিত্য ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করার জন্য।

      ReplyDelete
    12. খুব খুব ভালো কবিতা। এইভাবে জীবনের সাথে সংযুক্ত করা, এমন‌ করে দেখার ক্ষমতা সবার থাকে না। ধন্যবাদ কবিকে এমন অপূর্ব কবিতা উপহার দেয়ার জন্য, বাংলা সাহিত্য ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করার জন্য।

      ReplyDelete
    13. এত সুন্দর এবং অকৃত্রিম মন্তব্যর জন্য অশেষ কৃতজ্ঞতা
      এবং অন্তহীন শুভেচ্ছা

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ