আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। ! --সানজিদা রুমি ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। ! --সানজিদা রুমি



    এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে 

    সানজিদা রুমি

    যত তোমায় ভুলতে
    যাই দূরে ---
    ততই ধর আঁকড়ে
    বাঁধো আষ্টেপৃষ্ঠে;
    চাই যত ছাড়াতে
    তোমায় পিছে ফেলে
    চলে যেতে চাই অচিন পুরে –  
    আগলে রাখো পথ
    এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে 


    ভুলে যেতে চাই তোমায়
    জীবন অঙ্গনে-       
    আরো ঢের ভালোবেসে ফেলো
    আবদ্ধ কর;
    আশ্লেষ বাঁধনে।
    যত পালাতে চাই একান্তে
    নির্লিপ্ত দ্বীপান্তরে-
    তত করো দৃঢ় শক্ত
    অনড় বাহু;
    এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে 














    আমিতো নই নিয়মসিদ্ধ
    বিধিবদ্ধকরণ,
    কেন জড়াও নিবিড়ে
    নিষ্ফল, বৃথা আকিঁচন
    ভেসে যেতে চাই যদি
    ডুবে যেতে চাই যত -
    দুহাতে আনো তুলে
    ডুবুরীর মত
    সাধ্য কী তোমার চোখের
    সামান্য আড়াল হই -
    যেখানেই যাই সরে,
    বিছিয়ে রাখো ডালপালা 
    কর ভেদ অভিঘাত অন্তরে
    ক্রোশ পথও তোমায় পেরিয়ে
    অন্য পথে চলা-
    দুরূহ, দুষ্কর বৃথা প্রয়াস,  
    সমুদ্রের চেয়েও সমুদ্র তুমি
    আকাশের চেয়েও আকাশ
    ভুবন মহন বাঁশির সুরে
    নিয়ে যাও-
    রুপকথার স্বপ্নপুরে
    এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ  করো মোরে















    তোমায় ভোলাতে বসি কবিতার বৈঠকে
    গোপন অবগুণ্ঠন ঢেকে
    অমত্ত কায়া স্থির চিত্ত-
    তখনই কাছে টেনে নাও
    অনাবৃত করো আঁটসাঁট গ্রন্থি,
    তপ্ত প্রশ্বাস, জ্বলন্ত নিঃশ্বাসে
    অশান্ত কর মন
    দেহ আনচান-
    মিশে যাও কোষ থেকে কোষে
    অনু থেকে পরমানুর বিকিরণে
    নিঠুর গাঢ় নিষ্পেষিত ওষ্ঠ চুম্বনে
    তোমার আমার তাপিত দেহ
    তৃষ্না-ক্ষুধায় ভারাক্রান্ত
    ইন্দ্র-বীণার মীড়ের তানে
    গোপন অলিন্দে
    জেগে থাকা ইচ্ছেগুলো
    পরশ দিয়ে জাগিয়ে তোলো
    চেনা পথের বাইরে গিয়ে
    আমার বুকের আগল খোলো
    খেলতে খেলতে বলতে বলতে
    পৌছে- দাও চরম প্রান্তে
    তোমার আমার ক্লান্ত দেহ
    রসে গন্ধে আহ্লাদিত -
    প্রণয় সুধার মোহ টানে
    মধুবন্তী প্রেমের তানে
    লেপটে রাখো -
    বুকের গহিন বালুর চরে,
    এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে।  

    সানজিদা রুমি কর্তৃক গ্রথিত http://www.alokrekha.com

    7 comments:

    1. কনিকা সেনJuly 29, 2017 at 7:17 PM

      প্রেম ভালোবাসা জীবনের সাথে এমনভাবে আঁকড়ে ধরে।তার থেকে বেরিয়ে আসা অসম্ভব হয়ে পড়ে ।সানজিদা রুমির এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। কি যে সত্য । প্রতিটি শব্দে এই সত্যতা দৃশ্যমান। এক কথায় অনবদ্য।

      ReplyDelete
    2. চারুলতা ঠাকুরJuly 29, 2017 at 8:27 PM

      এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। কি দারুন লিখেছ সানজিদা। আমাদের হৃদয় নিংড়ান কথা গুলো কথায় ছবিতে তুলে ধর এমনি করে যে মাঝে মাঝে চখের জল ধরে রাখতে পারি নে ।"আমিতো নই নিয়মসিদ্ধ-বিধিবদ্ধকরণ,কেন জড়াও নিবিড়ে নিষ্ফল, বৃথা আকিঁচন।ভেসে যেতে চাই যদি ডুবে যেতে চাই যত -দু’হাতে আনো তুলে ডুবুরীর মত।" একশ ভাগ খাঁটি কথা। নিয়মসিদ্ধ যে তাকেও ছাড়বে না আবার বিধিবদ্ধকরণ যে তাকেও হারাতে দেবে না , এটা বড্ড অত্যাচার জানো । এমন কথা আর লেখ একনিভাবে এই প্রার্থনা করি ।

      ReplyDelete
    3. মোমেনা আরিফJuly 29, 2017 at 8:47 PM

      সানজিদা রুমি একজন আসলেও সম্পূর্ণ নারী! তাই নারীর জীবনে এমন ঘটনাকে উপলব্ধি করেছেন কানায় কানায়।এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। -এ যারা এই নিষ্ঠুর ভালবাসার স্বীকার প্রীতিটি লাইনের বাঁকে তারা নিজেকে খুঁজে পাবে! কি দারুন লিখেছন।

      ReplyDelete
    4. পাবলো --শাহবাগJuly 30, 2017 at 12:18 AM

      ভালবাসার কি লিঙ্গ হয় ?সুতরাং সানজিদা রুমি একজন নারীর কথাই লিখেছেন কবিতায় এখানেই তার কল্পনার সীমাবদ্ধতা বলে মনে করি। তিনি নিজের ব্যক্তি স্বত্বা থেকে বেরোতে পারেন না, একজন কবি সার্বজনীন হবে এতাই কাম্য।

      ReplyDelete
    5. মারুফ রাসূলJuly 30, 2017 at 3:11 AM

      সানজিদা রুমীর লেখা আমার অনেক প্রিয়। ওনার শেরেবাংলা স্বর্ণ পদক প্রাপ্ত "সংসার সমুদ্র" কবিতার বইয়ের প্রতিটা কবিতা অনেক হৃদয়গাহী।"এক কথায় দারুন! সানজিদা রুমির এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। জীবনের কথা -ভাষা বা শব্দের খেলা নয় জীবনের প্রতিচ্ছবি " ! সত্য জীবনের কাছাকাছি সানজিদা রুমীর লেখা। বিমূর্ত নয়। অনেক শুভেচ্ছা।

      ReplyDelete
    6. সানজিদা রুমীর লেখা আমার সব সময় অনেক প্রিয়। সহজ ভাব কবিতা অসাধারন লেখা-সানজিদা রুমির এভাবেই সম্পূর্ণ বিবশ করো মোরে। জীবনের কথা -ভাষা বা শব্দের খেলা নয় জীবনের প্রতিচ্ছবি সানজিদা রুমিকে অভিনন্দন .

      ReplyDelete
    7. গায়ত্রি সেনJuly 30, 2017 at 4:13 PM

      আমারা এভাবেই বিবশ হই বলেই আমাদের এই সুযোগ নেওয়া হয়।আমরা পাই না নিয়মসিদ্ধ-বিধিবদ্ধকরণ হতে জড়িয়ে যাই নিবিড়ে নিষ্ফল, বৃথা আকিঁচনে। পৃথিবী এগিয়ে যাচ্ছে আর আমরা কেন সেই প্যনপেনানি গীত গাচ্ছি সানজিদা? এখন কি আমাদের বিবশ হলে চলবে।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ