আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও ঝড় ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    ঝড়

     ঝড়

    কাজী রোজী

    ঝড়ের বৃত্ত থেকে সবাই আমরা বেরিয়ে আসতে চাই।
     যে ঝড় দেখা যায় সময়ে তা থেমে যায়
     ক্ষয়-ক্ষতির ধ্বংসাবশেষ আগলে ধরে
     আবার মানুষ বাঁচতে চায়
     উজ্জীবিত করতে চায়
     সৃষ্টি করতে চায় নতুন ইতিহাস।
     মানুষ তা পারেও।

    কিন্তু যে ঝড় দেখা যায় না...
    তীব্র ক্ষরণে দাউ দাউ দহনে
     লন্ডভন্ড ছারখার
     সবটাই অনাচার অবিচার
     সে ঝড়ের সমাচার কী!
     'আইলাদেখে মানুষ বলে- 'দ্যাশের কুনহানে
     বাঁচন নাই।'
    ঝড়ের কতো রকম ভেদ আছে।
     মেঘ যখন ঝড়কে অন্তরে ধারণ করে রাখে
     আমরা কেউ বুঝি কেউ বুঝি না।
     ঝড় যখন বেসামাল বৃষ্টিতে উড়িয়ে নিয়ে যায়
     আমার থেকে তোমার কাছে কিংবা তোমার থেকে আমার
     আমি তার সবটা গায়ে মাখি। যতনে গোলাপ
     ফোটার মতো আমি নিজেকে প্রস্ফুটিত করি।
     ঝড় যখন আকাশের ঈশান কোণে বাসা বাঁধে
     নানী দাদী বলে ওঠেন-
      বড় দারুণ ইশারা ঝড়ের হালখাতায়
     ভেতরে বাইরে সবটা সমান
     গরু ছাগল হাঁস মুরগির সঙ্গে
     মানুষের নির্বিচারে হারিয়ে যাওয়া।
     ফুল পাখি লতা পাতা তাও লুটায়।
     মসজিদ মন্দির গির্জা প্যাগোডা
     সবখানে শেষতক মেলে না বিশ্বাস।

    ঝড় যখন যুদ্ধ হয়ে নামে
     একটি বৃক্ষ তার তাবৎ শক্তি দিয়ে
     নিজেকে বাঁচাতে চায়।
     কিন্তু নিমেষেই ঝড় মুছে দেয়
     দূর্বাঘাসের জীবনগাথাও।
     ভিটেমাটির গভীর খনন থেকে উপড়ে এনে
     ধরাশায়ী করে দেয় ইচ্ছের ঘরবাড়ি।
     সবুজ বনানীর বুকে লাম্পট্য বিহার করে ঝড়।
     বিশাল বিরাণ ভূমির অট্টহাস্য
     সেখানে জেগে ওঠে-
     ভ্রূকুটি প্রদর্শন করে মানুষের শক্তির কাছে ঝড়।

    ঝড় যখন নিত্যদিনের ওঠানামায় আসে
     রাজনীতি অর্থনীতি সমাজনীতি  দুর্নীতির পাশে
     ঝড় যখন নির্ভাবনার ঘরানাতে অবিশ্বাসের মৌচাকে চাক বাঁধে
     তখনি ঝড় সবলোকে যায় সব মানুষের উচ্চারণের সাথে।
     ঝড় যখন স্বপ্ন ভাঙে
     কেড়ে নেয় সমুদয় মানুষের উচ্ছল হাসির মৃদঙ্গ।
     যখন সে পোয়াতি বউটার প্রসব বেদনার
     চিৎকার শুনতে পায় না
     দেখতে চায় না নবজাতকের নির্মল পবিত্রতা...
    আমি তখন দেখতে পাই
     শিশুর সাথে মায়ের ব্যবচ্ছেদ
     শুনতে পাই নাড়ি কাটার শব্দ।
     শিশুটি তখন ঝড়ের বন্ধ-জীবনের অঙ্গীকার।
     অতঃপর ঝড় যখন সম্পর্কের বাস্তুভিটায় আঘাত করে পরম্পরায়
     সারকারামার মতো সার্বিক চিত্র প্রবাহের খন্ড খন্ড রূপ মিছিল করে।

    ঝড় যখন মানচিত্রের বুকে ছোবল মারে
     দেশ-বিদেশের সাহায্যের ভালবাসায় জড়িয়ে নেয়
     বাংলাদেশকে
     মানুষের ভালবাসায় ইস্পাত কঠিন হয় মানবতা
     আমি কিন্তু তখন আমার ভেতরে
     কোন ঝড়ের প্রকোপ দেখিনে।
     মাতৃগর্ভ থেকে ঝড়ের ভ্রূণ নিয়ে জন্মেছি আমি
     তখন আমি স্থির অচঞ্চল ঋদ্ধ থাকি
     ঝড় জল বন্যার দারুণ স্থায়ী আবাসটিকে
     ভেঙে ভেঙে বাঁচি।
     আসলে ঝড়ের বৃত্ত থেকে আমরা সবাই
     বেরিয়ে আসতে চাই।



     http://www.alokrekha.com

    4 comments:

    1. অনিমেষ হীরাMarch 10, 2018 at 3:36 PM

      দূর্ভাগ্যক্রমে বরেণ্য কবি কাজী রোজী'র ঝড় কবিতাটা পড়া হয়নি। কবিতাটির নামকরণ সার্থক। এ ঝড় কেবল প্রাকৃতিক ঝড় নয়। এ ঝড় দেশের চলমান পরিস্থিতি ,মানব জীবনের বেঁচে থাকার ঝড়। অনেক ভাল লাগলো আলোকরেখা এই বরেণ্য কবির লেখা প্রকাশ করে আমাদের ভাল ভাল কবিদের কবিতা পড়ার সুযোগ করে দেবার জন্য।

      ReplyDelete
    2. This comment has been removed by the author.

      ReplyDelete
    3. আমি জানি কাজী রোজির কবিতাকলম
      খুব শক্তিশালী
      ঝড় কবিতাটি আমার ভেতর অন্য রকম ঝড় সৃষ্টি করলো
      কবির জন্য অন্তহীন শুভেচ্ছা
      আলোকরেখাকে স্বনামধন্য একজন কবির কবিতা ধন্যবাদ

      ReplyDelete
    4. ঋতু মীরMarch 11, 2018 at 11:45 PM

      বরেণ্য কবি কাজী রোজীর ‘ঝড়' কবিতার ভাব-গাম্ভীর্য, ভাষার বাঙময় ব্যবহার পাঠককে সমৃদ্ধ করে । ঝড় যখন বেসামাল বৃষ্টিতে উড়িয়ে নিয়ে যায়,ঝড় যখন যুদ্ধ হয়ে নামে, ঝড় যখন নিত্যদিনের ওঠানামায় আসে, ঝড় যখন মানচিত্রের বুকে ছোবল মারে-সেই তীব্রতার ক্ষরণে লণ্ডভণ্ড ছারখার হয় জনপদ, বিপন্ন, বিপর্যস্ত হয় মানুষের জীবন। ঝড়ের উপস্থিতি বিভিন্ন মাত্রায়। অনেক ঝড় দেখা যায় না, মেঘ যখন ঝড়কে অন্তরে ধারণ করে রাখে আমরা কেউ বুঝি কেউ বুঝি না –এই ব্যাখ্যা কবির অন্তর্নিহিত প্রজ্ঞা আর গভীর চিন্তা প্রসূত সত্যকে চোখের সামনে তুলে ধরে । কবিতার ভাবার্থ মর্মমূলে পৌঁছে দেয়ার শৈল্পিক কাজটি এক সুনিপুণ সুচারুতায় উপস্থাপিত হয়েছে। শুভকামনা কবি!
      ধন্যবাদ আলোকরেখা !

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ