আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও তোমার বন্দনা ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    তোমার বন্দনা













    তোমার বন্দনা
    - অনীত রায়
    তোমার জন্যই ছুটে আসি
    বহু নদী বহু মেঘ বহু ধুলো-পড়া পথ
    বসে থাকো রুদ্ধশ্বাস উৎকণ্ঠা মুহূর্তের সঙ্গী
    আমার ফুসফুসের উভয় পর্দায় ধৃত
    সংবহনতন্ত্রী বৃদ্ধি
    নীলাকাশে কালো শাদা অসংখ্য খণ্ড খণ্ড মেঘ
    তোমারই নাসারন্ধ্রে হ্রস্ব এক দীর্ঘশ্বাস
    অসীম প্রযত্নে আনখমস্তক আমি
    তোমার বন্দনা
    তুমি অলকাপুরীর প্রসাদশিখরে হেমদ্যুতিমুগ্ধ
    তবু তুমি তোমার মৃত্তিকা তোমার স্বেদক্ষরণ
    আমার কবিতা

    আমার ঝুলিতে কোন কষ্ট অপ্রাকৃত?
    কোন অতিলৌকিক আনন্দ-ঈপ্সা?
    তার থেকে কোন অজ্ঞাত বিষাদ?
    তুমিই আমার ইচ্ছাপূর্ণা জানি
    তবু কোন্ কোষে গুপ্ত কোন আর্সেনিক বিমিশ্রণ?
    কে জানে কোথায় আরাধিকা হয় কিরাৎরমণী
    কামার্ত ঋষির সামনে মৃগীচোখ মেলে দেবে বলে
     রক্তে কিছু ধরা পড়ুক মারক
    তবু থাকো তুমি তোমার অস্তিত্বে মূর্ত
    তোমার স্বনন আমার গানের খরজ-পঞ্চম
    মীড় ছুঁয়ে পেতে চায় পরমেশ
    যাঁকে ছুঁয়ে হরিদাস স্বামী পৃথ্বীজয়ী তীর্থঙ্কর
    কোনদিন যার স্বাদ পাবে নাকো দিল্লির ঈশ্বর
    সুধাচাঁদ মগ্ন হোক আদিগন্তরেখা
    নভোস্পর্শী তোমার বুকের কুটাম কাটাম
    আমি থাকি ধুলোর রাস্তায় অবিরাম পদব্রজে
    তবু তুমি তোমার অস্তি
    আমার কবিতা
    বর্ণহীন পর্ণসহ তোমার কুসুম
    আমার ঝুলিতে তোমার সযত্ন সংসৃতি

     http://www.alokrekha.com


    2 comments:

    1. তপন সেনMarch 10, 2018 at 3:17 PM

      কি দারুন গভীরতা ,ভাব মনের ভেতর অতল তলে অনুরণ সৃষ্টি করে। কত বার যে কবিতাটা পড়ালাম। কবি- অনীত রায় "তোমার বন্দনা !" কবিতাটা যেন আমার মনের কথাই বলছেন। অনেক ভালোবাসা কবিকে।আলোকরেখা অনেক ধন্যবাদ এমন একজন কবিকে পরিচিত করিয়ে দেবার জন্য ধন্যবাদ।

      ReplyDelete
    2. কামরুজ্জামান হীরাMarch 10, 2018 at 5:17 PM

      অনীত রায়ের "তোমার বন্দনা"-কবিতা প্রেমের অভিনব বিশেষভাবে নির্মিত রঁজন শোভা ।,দৃঢ় বক্তব্য আর শব্দ দিয়ে ভাবের প্রয়োগ।দারুন কবিতা ,অনেক শুভেচ্ছা কবি !

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ