আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও এখনো সুরঞ্জনা------------- সানজিদা রুমি ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    এখনো সুরঞ্জনা------------- সানজিদা রুমি
















    এখনো  সুরঞ্জনা

    সানজিদা রুমি


    "সুরঞ্জনা ওইখানে যেয়ো নাকো তুমি

    বোলো নাকো কথা অই যুবকের সাথে "

    সুরঞ্জনার বয়স এখন পঞ্চাশের কোঠায়

    এখনো বন্দি  নিষেধের কাঁটা বেঁড়ায়।

    দিন কাটে ,রজনী নির্মম ,আকাশ দেখে আকুল অনিমেষ নেত্রে

    ভাবনার ডানায় ভর করে আপনারে খোঁজে প্রতিটি নক্ষত্রে।

    অপেক্ষা নিত্যদিনের -

    ভোরের আলো ফুটতেই পাখির কাকলীতে

    দ্বোর খুলে দিয়ে বলবে "মুক্ত তুমি আজ "

    রজনী পোহালো ডানা মেলে উড়ে যাও দূর প্রান্তে।


    কন্যা হয়ে জন্মেছিল যেদিন ,

    সেদিন থেকেই সঙ্গে এনেছিল অনাকাঙ্খিত দুঃখ ভারাক্রান্ত প্রাণ

    মেয়ে বলেই হয়তো  মায়ের মুখের হাসিটিও ছিল ম্লান।

    পুত্রের আধেক সম্পত্তির ভাগিদার হবে আইনি শাস্ত্র জোরে -

    এক ধাপ নামিয়ে দিয়েছিল সমাজ তাকে সেই আঁতুর ঘরে।

    পিতার ক্ষীণ ,ভ্রাতার কঠিন দৃষ্টির পালিত ইশারায়

    প্রতি পদে পেরিয়েছে বাধা ,কিশোরী যুবতীর যাত্রায়।

    তারপর নারী !বিধাতার অপরূপ সৃষ্টি

    লাবণ্যে ভরপুর ,অঙ্গে ভরা যৌবন -

    রাখওয়ালা চাই ! চাই উপযুক্ত দারোয়ান।

    রক্ষক  টেনে দেয় আইনের কঠোর সীমানা -

    সদা রয় ভয় ,কখন সীমানা পেরোয়।

    পতিতার সম্মান পাবে নাকো হবে সে পতিত,

    কামনা না থাকলেও কামশাস্ত্রমতে ভোগ শয্যায় শায়িত।

    যৌবন পেরিয়ে মলিন হয়েছে দেহ বার্ধক্যের ছায়ায়

    সুরঞ্জনা চলে এখন সন্তানের ইশারায়।

    হে নারী !আকণ্ঠ দায়ভার নিমজ্জিত - সমাজ হিস্যায় বঞ্চিত-

    পুরুষের পাঁজর হতে সৃষ্ট তুমি ,বিধাতার রীতিসারে

    রয়েছো পুরুষের হাতের পুতুল হয়ে আজীবন রুদ্ধ কারাগারে।



    সানজিদা রুমি কর্তৃক গ্রথিত http://www.alokrekha.com

    7 comments:

    1. অমিয় সেনAugust 24, 2019 at 3:56 PM

      আলকরেখা যেন পুনরায় বন্ধ না হয়ে যায় এই আমার বিশেষ অনুরোধ। “এখনো সুরঞ্জনা” অপূর্ব বিষয় বস্তু,ভাষাভাব ও শব্দচয়ন ও রচনা শৈলী মিলিয়ে অনবদ্য ও অনিন্দ্য এক কবিতা।মেয়েদের জীবনের আসল চিত্র কবি তুলে ধরেছেন। আমরা অপেক্ষায় থাকি এমন কবিতার জন্য। মনটা ভরিয়ে দিল। দারুন অনুভূতি কবিতা বার বার পড়তে ইচ্ছে করে। ! আলোকরেখাকে ও কবিকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা।

      ReplyDelete
    2. রেহানা সুলতানাAugust 24, 2019 at 4:36 PM

      "এখনো সুরঞ্জনা" উত্কৃষ্ট চমৎকার জীবন বোধের প্রকাশ।অপূর্ব বিষয় বস্তু,ভাষাভাব ও শব্দচয়ন ও রচনা শৈলী মিলিয়ে অনবদ্য ও অনিন্দ্য এক কবিতা।মেয়েদের জীবনের আসল চিত্র কবি তুলে ধরেছেন। আমরা অপেক্ষায় থাকি এমন কবিতার জন্য। মনটা ভরিয়ে দিল। দারুন অনুভূতি কবিতা বার বার পড়তে ইচ্ছে করে। ! আলোকরেখাকে ও কবিকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা।

      ReplyDelete
    3. মিতা রহমানAugust 24, 2019 at 4:45 PM

      চমৎকার একটি কবিতা "এখনো সুরঞ্জনা"। মেয়েদের জীবন চিত্রের অনবদ্য প্রকাশ।কবিতার প্রতিটি কথা বাস্তবতার মুখোমুখি করে আমাদের। এমন কবিতার জন্য অপেক্ষায় থাকি। অপূর্ব বিষয় বস্তু ও রচনা শৈলী।খুব ভালো লাগলো। ভালো থাকুন কবি সানজিদা রুমি। মেয়েদের নিয়ে আরো এমন কবিতা লিখুন যা আমরা পড়তে ভালোবাসি।

      ReplyDelete
    4. "এখনো সুরঞ্জনা" চমৎকার একটি কবিতা। মেয়েদের জীবন এই রকমই হয়। আমি আলকরেখার একনিষ্ট পাঠক। আমার জীবন এখন বার্ধক্যের ছায়ায় আমি এখন চলি সন্তানের ইশারায়। সানজিদা রুমির বয়স কত আমার জানা নেই। ছবি দেখে তা বোঝা যায় না। উনি কি ভাবে উপলব্ধি করতে পারলেন তও আমার জানা নেই। কিন্তু লেখাগুলো প্রতিটি বাক্য অন্তরে বিদ্ধ হয়েছে। আমি আমার জীবন দিয়ে তা উপলব্ধি করেছি। অনেক অনেক শুভ কামনা কবি।

      ReplyDelete
    5. মোহন সিরাজীAugust 24, 2019 at 5:31 PM

      "এখনো সুরঞ্জনা" চমৎকার একটি কবিতা। মেয়েদের জীবন কি এই রকমই হয় ?আজকের বিশ্বে মেয়েরা চাঁদে যাচ্ছে মুক্ত বিহঙ্গের মত উড়োযান চালাচ্ছে। সেখানে আজকের দিনে এই কবিতার মূল বক্তব্য কি আমাদের বিভ্রান্ত করে না ?

      ReplyDelete
    6. বাহ্ রুমি তোমার কবিতায় দারুন উপলব্ধি
      অসাধারণ সমান্তরাল রেখা টেনেছো কবিতার খাতায়
      এরকম আরো অনেক কবিতা চাই

      ReplyDelete
    7. শামিম আক্তারAugust 24, 2019 at 11:10 PM

      "এখনো সুরঞ্জনা" চমৎকার একটি কবিতায় মেয়েদের জীবন চিত্র তুলে ধরেছেন। মেয়েদের জীবন এই রকমই। প্রথমের বাবা মায়ের শাসন তারপর স্বামী শেষে চলতে হয় সন্তানের ইশারায়। কবিতার প্রতিটি কথা সত্য। খুব সুন্দর হৃদয়গ্রাহী একখানা কবিতা। শুভেচ্ছা কবিকে।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ