আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও তুমি ! - সুনিকেত চৌধুরী। ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    তুমি ! - সুনিকেত চৌধুরী।

     
    তুমি !  
    - সুনিকেত চৌধুরী।
    এই যে সমুদ্র, এই যে নদী, এই যে নন্দিত নগর  

    এই দ্বিপ্রহরে এক দন্ড অবসর 

    দিয়ে দেয়া গেলো তোমাকে

    সেইসাথে দেয়া গেলো আমাদের দু'জনার 

    ফেলে আসা সবগুলো স্বর্ণালী সন্ধ্যা

    আমাদের দু'জনার হাত ধরাধরি হাঁটা 

    আর সেদিনের সেই প্রথম চুমু!
    আমার নাক-মুখ গোজা তোমার বুকের মধ্যিখানে

     তাও  দিয়ে দেয়া গেলো ! 
    এর পরেও কি বলবে তুমি 

    "লিখছো তো বেশ!"




     http://www.alokrekha.com

    6 comments:

    1. নবনীতা ব্যানার্জিAugust 22, 2019 at 3:40 PM

      এতদিন পর আলোকরেখায় প্রিয় কবি সুনিকেতের লেখা পেয়ে খুব ভালো লাগলো। আমরা চাতকের মত বসে থাকি কবির একটা লেখার জন্য।

      ReplyDelete
    2. রেহানা সুলতানাAugust 22, 2019 at 3:48 PM

      কবি সুনিকেত চৌধুরীর লেখা পেয়ে আনন্দে মনে পুলক লাগলো। কবি এই কবিতায় তার প্রিয়াকে সব দিয়ে ধন্য। খুব ভালোলাগার একটা ছোট কবিতা। আলোকরাখার কাছে বিশেষ অনুরোধ আর যেন প্রকাশনা বন্ধ না হয় আমরা খুব আশাহত হই। অনেক অভিনন্দন আলোকরেখাকে।ভালবাসা কবি।

      ReplyDelete
    3. আবির আহসানAugust 22, 2019 at 4:13 PM

      কবি সুনিকেত চৌধুরীর লেখা পেয়ে আনন্দে মনটা উৎফুল্ল হয়ে উঠলো। এই সমুদ্র, নদী, নন্দিত নগর দ্বিপ্রহরে এক দন্ড অবসর দু'জনার ফেলে আসা সবগুলো স্বর্ণালী সন্ধ্যা, হাত ধরাধরি হাঁটা প্রথম চুমু সব বিলীন হল কবির প্রিয়াতে। প্রতিদানে শুধু একটি বাক্য "লিখছো তো বেশ!" - এটা তার প্রতি কি অবিচার নয় ?

      ReplyDelete
    4. বহুদিন পর আমাদের প্রিয় কবির কবিতা পেয়ে খুব প্রীত হলাম। কবি সুনিকেতের কিবিতায় এমন কিছু থাকে যা আমাদের মোহিত করে। "তুমি " কবিতায় ধরা যাক ছোট কবিতা কিন্তু মর্মে যেয়ে লাগে। প্রেমিক জীবনের আরেক রূপ প্রতিফলিত এখানে। সর্বস্ব দিয়েও আমরা প্রতিদানে পাই সামান্য কিছুই। এই কবিতায় কবি জীবনের অনেক কিছু দিয়েও পেলেন শুধু এলটি লাইন "লিখছো তো বেশ!".

      ReplyDelete
    5. মৃন্ময়ীAugust 22, 2019 at 5:18 PM

      ও মা ! কতদিন বাদে আমার প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরীর লেখা পেয়ে আনন্দে মনটা ভরে হয়ে উঠলো। এই সমুদ্র, নদী, নন্দিত নগর দ্বিপ্রহরে এক দন্ড অবসর দু'জনার ফেলে আসা সবগুলো স্বর্ণালী সন্ধ্যা, হাত ধরাধরি হাঁটা প্রথম চুমু সব বিলীন হল কবির প্রিয়াতে। প্রতিদানে শুধু একটি বাক্য "লিখছো তো বেশ!".এতটা স্বার্থপরতা সহন যোগ্য নয়। এই কথাগুলো কবির মত আমাদেরও আহত করে। যে জীবনের সব কিছু দিয়ে দেয় তার জন্য জীবন পণ করা। একটুও মন খারাপ করবেন না কবি। অনেক অনেক ভালবাসা। ভালো থাকবেন। আরো ভালো ভালো কবিতা উপহার দেবেন।

      ReplyDelete
    6. মিতা হকAugust 23, 2019 at 2:17 PM

      প্রিয় কবি সুনিকেত চৌধুরীর লেখা পেয়ে আনন্দে মনটা আনন্দিত হয়ে উঠলো।তুমি কবিতায় কবির অনুযোগ প্রাধান্য পেয়েছে। তিনি জানতে চেয়েছেন। নিজেকে ও সবকিছু বিলীন করে দেবার পর কেবল ছোট্ট একটি সম্মতি যা কবিকে হতাশ করেছে ,খুব সুন্দর লেখনী। তবে কবির কাছে বিনীত ভাবে বলতে চাই ছোট্ট কথা দিয়েও রাজ্যের কথা কওয়া যায়. তাই নয় কি ?

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ