আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও ছাব্বিশ লক্ষ হৃদয়ের স্পন্দন! ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    ছাব্বিশ লক্ষ হৃদয়ের স্পন্দন!

    ছাব্বিশ লক্ষ হৃদয়ের স্পন্দন! 

     

    কোভিড পরবর্তী সময়টা আমাদের সবাইর জীবনে একটা নতুনতর ধারা আনবেএকটা স্বপ্রনোদিত কৃচ্ছতা একটা সংযম,একটা সার্বজনীন সহমর্মিতা এবং সর্বোপরি নিরবিচ্ছিন্ন নীরবতা কিংবা সশব্দে সবান্ধবে উপস্থিতি কোন প্রশ্নের উদ্রেক 

    করবে না - এই রকম একটা ধারণা সবার মনে কম বেশী দানা বেঁধেছিলো।আমরা আশায় ছিলামঅপেক্ষায় ছিলাম কোভিড প্রাপ্ত শিক্ষা আমাদের এই পৃথিবীটাকে আমাদের সন্তানদের জন্যে 

    অধিকতর বাসযোগ্য করার কাজ শুরু করার প্রয়োজনটা প্রাধান্য পাবে আমাদের সমস্ত উন্নয়ন পরিকল্পনায় ! একদুইতিন করে পর্য্যায়ে পর্য্যায়ে গত 'দিনের বদ্ধ দুয়ার খুলে আর নীরবতা ভেঙে আমাদের আঙিনা কলরবে মুখরিত হবার 

    সম্ভাবনাটা সত্য হয়ে উঠছে ধীরে ধীরে ! দিগন্তে উদ্ভাসিত আলোকরেখা চিরকালের মতো আজও আমাদের সবার হৃদয়ে পুত পবিত্র আনন্দের অনুরনণ এনে দেয় একেবারে সনাতন সত্যের মত!

    পরশ মানিকের সন্ধানে শেকল গায়ে জড়ানো সেই পাগলের মত একটি করে পাথর শেকলে ছুঁইয়ে শেকল সোনা হয় .কিনা পরখ করতে করতে ক্লান্ত পাগল যেমন এক সকালে ঘুম থেকে জেগে অবাক বিস্ময়ে আবিষ্কার করেছিল অভ্যাসের 

    বশে কখন যে পরশমনি খুঁজে পেয়ে শেকলে ছুঁইয়ে আবার ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিলো সে নিজেই জানে না ! আজ আলোকরেখার ওয়েব সার্ভারের প্রনোদিত নতুন ডিজাইনের ড্যাশবোর্ডে কাজ করতে গিয়ে উন্মোচিত পাঠক কাউন্টারের সংখ্যাটা যেন পাগলের সেই সোনা হয়ে যাওয়া শেকল। অতিক্রান্ত ছাব্বিশ লক্ষ! 'আলোকরেখা' ছায়ায় এই ছাব্বিশ লক্ষ হৃদয়ের স্পন্দনের  সিম্ফোণীতে আমাদের সবার গৃহকোণ হোক সুন্দর , হোক সুরক্ষিত ! আমরা দূরে দূরে থেকে পরস্পরে অনেক বেশী কাছাকাছি আসি।আমরা ভালোবাসি ! অনঅভিপ্রেত কোভিড এর ছায়া হোক অপসারিত !

    সানজিদা রুমি কর্তৃক গ্রথিত http://www.alokrekha.com

    10 comments:

    1. আমি চিরটাকাল আমার সকল বিপর্য্যয়ে, সকল সংকটে নিজেকে একজন perpetual optimist হিসেবে ঘোষণা দিয়েছি, দাবী করেছি ! আশাহত হয়েছি শতবার, কিন্তু আশা ছাড়িনি! শরীর, স্বাস্থ্য, মন আক্রান্ত হয়েছে, আর্থিক সংকটে পড়েছি, আশাহীন আগামীকালের মুখোমুখি হয়েছি অগুনতিবার! বিপদসংকুল সংকীর্ণ পথে হেঁটেছি, হেঁটেছি নিকষ কালো অন্ধকারে, তবু বুকের ভেতরে জ্বালিয়ে রেখেছি আশার পিদিম! কিন্তু সেই আমিও "আলোকরেখা"র নীরবতায় একেবারে হতাশ হয়ে পড়েছিলাম! জেনেছিলাম সানজিদা রুমীর শারীরিক স্বাস্থ্যের ব্যারোমিটাররের ওঠা-নামার কথা, কোভিড আক্রান্ত পৃথীবির প্রায় সব প্রান্তেই বসবাসরত রুমীর বিস্তৃত পরিবারের খোঁজ-খবর নেয়ার দায়িত্ব পালনের দায়ের কথা, এবং সবার ওপরে এই কোভিডের থাবায় ছোট ভাইকে হারানোর কথা - সব মিলিয়ে সানজিদা রুমীর আলোকরেখার জন্যে সময় দেয়াটা একেবারেই সম্ভব হয়ে ওঠেনি! কিন্তু এতো কিছু জেনেও ঘরের ভেতরে অন্তরীণ থাকার এই সময়গুলোতে আলোকরেখার ঝলকানি দেখতে পাওয়ার আশা করে বসে থেকে থেকে ঠিক যখন আশা ছেড়ে দেবার মত একটা অবস্থায় এসে পৌঁছচ্ছিলাম, ঠিক সেই মুহূর্তে দিগন্তে উদ্ভাসিত হলো আমাদের সবার একান্ত প্রিয় "আলোকরেখা !"

      সানজিদা রুমী, আপনাকে অনেক ধন্যবাদ!

      ReplyDelete
    2. মিতা হকAugust 20, 2020 at 8:21 PM

      দারুন লাগছে আজ এতদিন পর লেখা পেলাম। অনিন্দ্য সুন্দর লেখা। এবার থেকে যেন আমরা নিয়মিত লেখা পাই তার খেয়াল রাখবেন। ২৬ লক্ষে পৌঁছানোর জন্য অনেক অনেক অভিনন্দন।

      ReplyDelete
    3. মাসুম রেজাAugust 20, 2020 at 8:29 PM

      আলোকরেখা ২৬ লক্ষ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করেছে ।এর সামনের চলার পথ আরো সুন্দর হোক ।এবারের লেখাটা কি অপূর্ব। কি লেখার গাঁথুনি তেমনি বার্তার বিনুনি। সব মিলিয়ে চমৎকার ,অনন্য।

      ReplyDelete
    4. মিতা রহমানAugust 20, 2020 at 9:21 PM

      সানজিদা রুমি ও আলোকরেখাকের চলার পথ সুন্দর সুগম ও সুললিত হোক এই কামনা করি -- ভালবাসা আর অভিনন্দন!

      ReplyDelete
    5. শর্মিষ্ঠা সেনAugust 20, 2020 at 10:32 PM

      অন্তরের অন্তরতম অভিনন্দন! আলোকরেখা! বিমুগ্ধ পাঠকের প্রত্যাশা পূরণে তোমার অঙ্গীকার আলোকরেখাকে আরও বহুদুর নিয়ে যাক- এই শুভ কামনা!আর লেখাটা যে কি দারুন হয়েছে তা বলার নয় ।ভাল থেক !!!

      ReplyDelete
    6. আমি আনন্দে আপ্লুত / অরণ্য উন্মাদনায় দারুন আক্রান্ত / রুমির লেখাতো নয় যেন দীর্ঘ অমাবশ্যা রাত্রির পর ভোরের পাখির গান / এই বিবশ ভীতির সময়ে আমি নিয়মিত আমার সুহৃদ বন্ধু রুমির খবর রেখেছি
      যখন খবর পাইনি ব্যাথায় বিবর্ণ হয়েছি
      আলোকরেখা নুতন আঙ্গিকে দেখা দিক আলোর ভুবনে এই আকাঙ্খা করি
      শুভ কামনা নিরন্তর

      ReplyDelete
    7. আহমেদ শফিকAugust 21, 2020 at 3:20 PM

      আজ এই দুর্দিনে আলোকরেখা ২৬ লক্ষ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন খুব ভাল লাগলো । আগামী চলার পথ সুন্দর ও সুগম হোক আলোকরেখাকে অনেক অনেক অভিনন্দন আর সাধুবাদ।

      ReplyDelete
    8. হেলাল রহমানAugust 21, 2020 at 4:07 PM

      আলোকরেখাকে সুস্বাগতম। আলোকরাখার চলার পথ সুন্দর সুগম হোক এই কামনা করি।

      ReplyDelete
    9. সীমা দাসAugust 21, 2020 at 4:51 PM

      আজ আলোকরেখা ২৬ লক্ষ পাঠক সংখ্যায় পদার্পন করেছে ।। আগামী চলার পথ সুন্দর ও সুগম হোক আলোকরেখাকে অনেক অনেক অভিনন্দন আর সাধুবাদ।সানজিদা রুমি ভাল লেখেন তবে এই লেখাটা তার অনবদ্য ।

      ReplyDelete
    10. সৌমিত্র দত্তAugust 21, 2020 at 5:22 PM

      কি যে ভাল লাগছে আলোকরেখা আবার সচল হয়েছে সেই সাথে ২৬ লক্ষে পৌঁছেছে। এখন আমার প্রিয় কবি সুনিকেতের কবিতা প্রকাশ করার বিশেষ অনুরোধ রইল। আলোকরেখার চলার পথ সুন্দর সুগম হোক এই কামনা করি নিরন্তর।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ