আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও বিষণ্ণ বিকেল! ------ সুনিকেত চৌধুরী ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    বিষণ্ণ বিকেল! ------ সুনিকেত চৌধুরী

     বিষণ্ণ বিকেল!
    - সুনিকেত চৌধুরী

    বিষন্নতার বিচরণ তো ছিলো
    আমার আংগিনা জুড়ে সেই কতকাল
    তোমার তো ছিলো বৈশাখ, ছিল ফাগুন
    আর ছিলো এক আকাশ কবিতা !
    উদ্দীপ্ত আকাঙ্খা ছিলো, রৌদ্র ছিলো
    ওভার ব্রীজের ওপাড় ছিলো
    উন্মুক্ত পার্ক দেখা যায় ব্যালকনি ছিলো !
    পার্কে প্রথম আলিঙ্গনের স্মৃতি ছিলো
    বাস স্টপে নেমে হাঁটা পথে ঝরা পাতার মর্মর ছিলো
    পূর্ণিমা ছিলো, পরিভ্রমণ ছিলো, অভিপ্রায় ছিলো
    উজাড় করে দেয়া ভালোবাসা ছিলো !
    যুদ্ধ-ক্লান্ত বিকেলের ম্রিয়মান সূর্য্য
    কিংবা একান্ত সমর্পিত বুক বিহনে  
    বিষণ্ণতা তো আমাকে ঘিরে !
    তোমার ব্যালকনির সুইং ডোর খোলা থাক
    বৃষ্টির জলে সিঞ্চিত হোক তোমার ঝুল বাগান !
     http://www.alokrekha.com

    5 comments:

    1. শফিক রায়হানSeptember 26, 2019 at 8:11 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর বিষণ্ণ বিকেল!- আপন মহিমায় আপনি উদ্ভাসিত। অনন্য উপমা।কবির হৃদয় নিংড়ানো অনুভূতির কি গভীর প্রকাশ। খুব ভালো লাগলো । ভালো থাকবেন।

      ReplyDelete
    2. রেহানা সুলতানাSeptember 26, 2019 at 8:31 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর বিষণ্ণ বিকেল!- কবিতায় এক ভিন্ন ধারার কবিতা। প্রেমের কবি যখন বিষন্নতার কথা বলে। সেটা মেনে নিতে বেশ কষ্ট হয়। ভালো খাবেন কবি।

      ReplyDelete
    3. জয়দেব স্যান্নালSeptember 26, 2019 at 8:52 PM

      সুনিকেত চৌধুরীর বিষণ্ণ বিকেল!- অনবদ্য কবিতা ! একজন কবির কাছ থেকে এমন অভিব্যক্তি কাম্য । আমি অপেক্ষায় থাকি কবি সুনিকেত চৌধুরীর কবিতার জন্য। অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা কবি ।

      ReplyDelete
    4. কৃষ্ণা সেনSeptember 26, 2019 at 9:56 PM

      বিষন্নতার বিচরণ তো ছিলো
      আমার আংগিনা জুড়ে সেই কতকাল
      তোমার তো ছিলো
      আর ছিলো এক আকাশ কবিতা ! এখানে কবি মনের হতাশা দেখা দিয়েছে বিষণ্নতা কবির আঙিনা জুড়ে। তবুও তার প্রেমিকার জীবনে এসেছে বৈশাখ, ছিল ফাগুন আর ছিলো এক আকাশ কবিতা !উদ্দীপ্ত আকাঙ্খা ছিলো, রৌদ্র ছিলো কিন্তু কবির বুকে বিষণ্ণতা। সুনিকেত চৌধুরীর বিষণ্ণ বিকেল!- অনবদ্য কবিতা !ভালো লাগলো।

      ReplyDelete
    5. বিষণ্ণতা মানুষের মনের ভিতরের অনুচ্চারিত গভীর বেদনা বা অব্যক্ত কষ্ট । বিষণ্ণতা মনের গহীনে লুকিয়ে থাকা ‘Secret sorrows’ যা বাইরের পৃথিবী টের পায়না। সুনিকেত চৌধুরীর ‘বিষণ্ণ বিকেল’ কবিতার অসাধারন ভাব, শব্দ চয়ন মন ছুয়ে গেছে। ‘বৃষ্টির জলে সিঞ্চিত হোক তোমার ঝুল বারান্দা’-- এই পঙক্তির কাব্যভাব সাবলীল ক্ষমতায় মনের বিষণ্ণতা বৃষ্টির জলের মতই ধুয়ে নিয়ে যায়। 'একান্ত সমর্পিত বুক বিহনে বিষণ্ণতা তো আমাকে ঘিরে!’-- কবির বিষণ্ণতার প্রচ্ছন্ন এক দীর্ঘশ্বাসও যেন এখানে ফুটে উঠেছে! আবেগ তাড়িত মনের ভাবকে অক্ষরের বুননে প্রান ছোঁয়া রুপ দিতে সুনিকেত চৌধুরী বরাবরের মত অতুলনীয়! নিরন্তর শুভকামনা কবি!

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ