আলোকের এই ঝর্নাধারায় ধুইয়ে দাও -আপনাকে এই লুকিয়ে-রাখা ধুলার ঢাকা ধুইয়ে দাও-যে জন আমার মাঝে জড়িয়ে আছে ঘুমের জালে..আজ এই সকালে ধীরে ধীরে তার কপালে..এই অরুণ আলোর সোনার-কাঠি ছুঁইয়ে দাও..আমার পরান-বীণায় ঘুমিয়ে আছে অমৃতগান-তার নাইকো বাণী নাইকো ছন্দ নাইকো তান..তারে আনন্দের এই জাগরণী ছুঁইয়ে দাও রোকসানা লেইসের ছয়টি অনু কবিতা ~ alokrekha আলোক রেখা
1) অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না, কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায় -এডওয়ার্ড হল । 2) অবসর জীবন এবং অলসতাময় জীবন দুটো পৃথক জিনিস – বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন । 3) অভাব অভিযোগ এমন একটি সমস্যা যা অন্যের কাছে না বলাই ভালো – পিথাগোরাস । 4) আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও , আমি তোমাকে শিক্ষিত জাতি দেব- নেপোলিয়ন বোনাপার্ট । 5) আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না – শিলার । 6) উপার্জনের চেয়ে বিতরণের মাঝেই বেশী সুখ নিহিত – ষ্টিনা। 7) একজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যাক্তি কে জাগ্রত করতে পারে না- শেখ সাদী । 8) একজন দরিদ্র লোক যত বেশী নিশ্চিত , একজন রাজা তত বেশী উদ্বিগ্ন – জন মেরিটন। 9) একজন মহান ব্যাক্তির মতত্ব বোঝা যায় ছোট ব্যাক্তিদের সাথে তার ব্যবহার দেখে – কার্লাইন । 10) একজন মহিলা সুন্দর হওয়ার চেয়ে চরিত্রবান হওয়া বেশী প্রয়োজন – লং ফেলো। 11) কাজকে ভালবাসলে কাজের মধ্যে আনন্দ পাওয়া যায় – আলফ্রেড মার্শা
  • Pages

    লেখনীর সূত্রপাত শুরু এখান থেকে

    রোকসানা লেইসের ছয়টি অনু কবিতা

     রোকসানা লেইস
    এক ষষ্ঠ ইন্দ্রেয় বড় বেশী কথা বলে আজকাল আমি স্বযতনে দূরে সরিয়ে রাখি আতংক অনিন্দ্য স্বপ্নের পথে হাঁটি. হৃদয়ের ওষ্ঠে অধর ছোঁয়ায়। মনের চত্বরে মেলে মায়াময় পাখা, থাক না যতই বাঁধা ও বিপত্তি যুদ্ধ বিগ্রহ। নিহারিকা আলো পেরিয়ে যাবো ঠিক ভালোবাসার হাত ধরে অবশেষে। ফাগুয়ার দোল রঙ ছড়িয়ে যাবো হৃদয়ের আলপনায়, রঙিন বন্ধন আনন্দ । দুই শরীরের ফিজিক্স, ক্যামিস্ট্রর ভাঁজ খুলে নিও আপনমনে জ্যামিতিক ফর্মে সাজানো রেখাগুলো, জুড়ে ভেঙ্গে রঙের প্রলেপ দিও আনমনে। অংকের হিসাব মিলানোর মতন গুনে নিও মিলনের সকল কারুকাজ জল আর আকাশের অভিমান রঙধনু স্পর্শ মনোবিজ্ঞানের ছবিটি ঠিকঠাক বুঝে নিও হৃদয়ে হৃদয়ে- তিন বৈচি আর ভাটফুলের ঘ্রাণে এক শৈশব আনন্দ ভাঙ্গা পুতুলের সীমানা কখন যে আপনমনে ডুব দেয় সোদা বাক্সের গভীরে। বিবর্ন সবুজ বিলীন, বর্ণময় রঙ্গিন বুদ্বুদ উজ্জ্বলতায় যৌবনের হাতছানীতে। আকাশ সে তো একই থাকে। অঝর বৃষ্টিধারায় ফোটে কদম। অভিমান, আবেগ কথা কয় খোলা জানালায় ভালোবাসা নদীর জল মোহনায় ছুটে, মিলে সাগরের জলে। বজ্র বিদ্যুৎ চমকময় জীবন গড়িয়ে যায়, আপন চকমকি পাথর ঠুকে ঠুকে জ্বালিয়ে আলোর সম্ভার পথে পথে। অচেনা আপন চিন্তার গভীরে মেলে দেয় প্রজাপতির পাখা বর্ণময় সুগন্ধযুক্ত। চার ঝলসে উঠবেই বিদ্যুৎ হৃদয়ে হৃদয় দেখা পেলে আগুন গোলাপ হয়ে ফোটবে চুলের অরণ্যে মুখ রাখবে ভালোবেসে বৃষ্টির ফোটারা নাচবে তাতাথৈ ঝড়ের দামালে। অভিমান গলে যাবে মোমের মতন অন্তরে অন্তর বয়ে যাবে স্রোতস্বনী নীলমেঘ বহতা সপ্তর্ষি; হবে ধ্রুবতারা এক মন এক পল্লবীত দেহধারা। পাঁচ সকালের নরম রোদ পাতার বুকে হৃদয়ের সব রঙ মেলে দেয়া আকাশ চোখের সমুদ্র জুড়ে তোমার মুখ ভালোবাসা স্বপ্ন সেতো সুখের অনুভব ছয় অপেক্ষার ক্লান্তি ফুরায় তপ্ত ঠোটের ভাঁজে। জটিল কাব্যময়তা উদাসী চেয়ে থাকে। http://www.alokrekha.com

    4 comments:

    1. মেহের আফরোজApril 19, 2020 at 4:30 PM

      দারুন অনবদ্য কবিতাগুলো অপূর্ব ভাব ! অনন্য উপমা! শব্দের মুক্তা মালা!আবাহন আলোর নতুন দিনের! অনেক সুন্দর কবিতা! শুভেচ্ছা রইল!

      ReplyDelete
    2. মিতা রহমানApril 19, 2020 at 4:40 PM

      গভীর চেতনার অভিব্যক্তি এই কবিতা গুলো । নিদারুন একটা কবিতা। অনেক শুভেচ্ছা কবি।

      ReplyDelete
    3. শহীদ সালেহীনApril 19, 2020 at 5:02 PM

      অনিন্দ্য এক কবিতা মনটা ভরিয়ে দিল। দারুন অনুভূতি কবিতাগুলো বার বার পড়তে ইচ্ছে করে। ! আলোকরেখাকে ও কবিকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা ।ভালো থাকবেন নিরাপদে থাকবেন।

      ReplyDelete
    4. তরুণ কুমারApril 19, 2020 at 5:41 PM

      অনিন্দ্য দারুন অনুভূতি কবিতাগুলো পড়ে খুব ভালো লাগলো। অনেক শুভেচ্ছা কবি।

      ReplyDelete

    অনেক অনেক ধন্যবাদ